বৃহস্পতিবার ০৪ জুন ২০২০
Online Edition

ডামুড্যায় নিজ বাড়ির আঙ্গিনায় সাংবাদিক ফয়সালের লাশ দাফন

শরীয়তপুর সংবাদদাতা : নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত  আহমেদ ফয়সালের লাশ গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় হাজার হাজার লোকের অংশ গ্রহণে জানাযা শেষে নিজ বাড়ির আঙ্গিনায় তাকে দাফন করা হয়েছে। ফয়সালের দাফনের মধ্য দিয়ে ঐ বাড়িতে প্রথম কারো কবর স্থাপন করা হলো। বাড়িতে প্রবেশ করতে এবং বের হতে প্রথমেই স্বজনদের চোখ পড়বে ফয়সালের কবরের দিকে।  যেতে -আসতেই মা-বাবাসহ সর্ব সময় স্বজনদের দোয়ার জন্যই তাদের চোখের সামনে ফয়সালের মরদেহ দাফন করা হয় বলে জানান স্বজনরা। এর পুর্বে সোমবার ফয়সালের লাশ বাংলাদেশে আসছে সংবাদের পর থেকেই ছেলে হারানোর শোকে মা সামছুন নাহার  বেগম বার বার বাকরুদ্ধ হয়ে পরেন। বাবা সামছুদ্দিন সরদার ছেলের রুহের মাগফেরাত কামনায় সকলেরর দোয়া কামনা করছেন আর নিরব চোখের পানি ঝরাচ্ছেন। ভাই বোনসহ অন্য স্বজনদের কান্নায় বাতাশ ভারী হয়ে উঠে। রাত ৩টায় ফয়সালের লাশ বহন কারি গাড়িটি শরীয়তপুরের ডামুড্যার নিজ বাড়িতে এসে পৌঁচ্ছায়। সকাল সারে আটটার দিকে তার লাশ নিয়ে রাখা হয় পূর্ব মাদারীপুর বিশ^ বিদ্যালয় কলেজ মাঠে। বেলা বারার সাথে সাথে প্রতি বেশী নারী পুরুষের ঢল নামতে শুরু করে কলেজ মাঠে।
গতকাল রাত ৩টায় তার নিজ গ্রামের বাড়ি লাশ পৌঁছায়। লাশ বাড়ি আসার পর আত্মীয় স্বজন পাড়া প্রতিবেশীসহ  শত শত  লোক ফয়সালের বাড়ি এসে ভীড় জমায়। সেখানে বাব মা সহ আত্মীয় স্বজন কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। নিহতের মা সামনসুন্নাহার বেগম জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। বাবা সামসুদ্দিন সরদার বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন। এলাকাবাসী ও স্বজনরা স্বান্ত¦না দিতে গিয়ে তারাও কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। মঙ্গলবার সকাল সারে ৮টার দিকে তার লাশ নিয়ে রাখা হয় পূর্ব মাদারীপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে।  সকাল সোয়া ১০টায় কলেজ মাঠে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা শেষে ফয়সালের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় ডামুড্যা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, স্থানীয় সাংবাদিক ও তার কর্মস্থলের সহকর্মীরা। শেষে ডামুড্যা বাজারের তার নিজ বাড়ি সরদার গার্ডেনে চোখের জলে ফয়সালের লাশ দাফন করা হয়। ফয়সালের লাশ দাফন শেষে তার সহকর্মীরা বিদায় নেয়ার সময় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। এ সময় ফয়সালের বাবার সাথে সবাই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ