সোমবার ০১ জুন ২০২০
Online Edition

খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিতে সরকার হস্তক্ষেপ করেনি -ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিতে সরকার কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করেনি বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল মঙ্গলবার মরহুম রাষ্ট্রপতি জিল্লুর  রহমানের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকীতে বনানী কবরস্থানে তার সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানো শেষে তিনি এ কথা বলেন।
ওবায়দুল কাদের অভিযোগ করেন, বিএনপি কখনো আদালতের রায় মানে না। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা হবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। সোমবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন ৮ মে পর্যন্ত স্থগিত রাখার আদেশ হয়। জামিন স্থগিত চেয়ে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের করা পৃথক লিভ টু আপিল গ্রহণ করে প্রধান বিচারপতি  সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ সোমবার এ আদেশ দেন।
এই আদেশের পর তার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেছেন, ‘এই আদেশ অনভিপ্রেত এবং নজিরবিহীন।’
আদেশের পর তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা মনে করি এটা একটা নজিরবিহীন আদেশ হয়েছে। আমরা নজিরবিহীন বলতে বাধ্য হচ্ছি এই কারণে যে, অতীতে এই ধরনের আদেশ দেশের সর্বোচ্চ আদালত দেয়নি।’
মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য সরকারকে দায়ী করে তিনি বলেন, ‘নিম্ন আদালতগুলো এই সরকার গ্রাস করে ফেলেছে। খালেদা জিয়া-বিএনপি-ওবায়দুল কাদেরউচ্চ আদালতকেও মনে হচ্ছে আস্তে আস্তে গ্রাস করার চেষ্টা করছে। তাই আদালতকে আমি বলেছি, মাননীয় আদালত। দেশের মানুষ আপনাদের কাছে বিচার পাওয়ার আশা নিয়ে আসে। কিন্তু তারা আশাহত হলে এই বিচারপ্রার্থী মানুষের আদালতের প্রতি আস্থা থাকবে না।’ জিল্লুর রহমান ২০১৩ সালের ২০ মার্চ বার্ধক্যজনিত রোগে সিঙ্গাপুরের এক হাসপাতালে ইন্তিকাল করেন।
জিল্লুর রহমান আওয়ামী লীগের স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে রাজনৈতিক জীবন শুরু করেন এবং ২০০৯ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি দেশের ১৯তম রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন। তিনি পাঁচটি পৃথক মেয়াদে ১২ বছর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।
আওয়ামী লীগ, সহযোগী সংগঠন, অন্যান্য সমমনা সংগঠন এবং সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংস্থা মরহুম নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। তারই অংশ হিসেবে ওবায়দুল কাদের জিল্লুর রহমানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করতে যান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ