শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চলছে ব্যাটারিচালিত রিকশা

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা : ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তিন চাকার যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মিরসরাইয়ে চলছে ব্যাটারি চালিত রিকশা। প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ না থাকায় অনভিজ্ঞ চালকের হাতে পরিচালিত এসব রিকশার সংখ্যা বাড়ছে দিন দিন। মিরসরাইয়ের দক্ষিণ দিকের বড় দারোগারহাট থেকে দক্ষিণে বারইয়ারহাট পৌরসভা পর্যন্ত মহাসড়কের পাশ ঘেঁষে অবস্থিত প্রতিটি হাট বাজার এলাকায় চলছে এসব রিকশাগুলো। কম খরচ এবং ভাড়া বেশি আদায় হওয়ায় মালিকরাও এই ব্যবসার দিকে ঝুকছেন।
সম্প্রতি উপজেলার বারইয়াহাট পৌরসভার মহাসড়ক এলাকায় বৃদ্ধি পেয়েছে ব্যাটারি চালিত রিকশা। চট্টগ্রাম মহানগর থেকে তুলে দেয়া অন্তত শতাধিক ব্যাটারি রিকশা এখন বারইয়াহাট-সোনাপাহাড়, মস্তাননগর মিঠাছরা এলাকাসহ আশেপাশের মহাসড়কেই পাল্লা দিয়ে চলাচল করছে। অবাধে মহাসড়কে রিকশাগুলো চলাচল করলেও পুলিশ এখনো পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেয়নি
 পুলিশের পাহারার মধ্য দিয়ে অনেক সময় রিকশাগুলো মালামাল নিয়ে কখনো মানুষ নিয়েই চলাচল করছে মহাসড়কে। অন্যান্য রাস্তাগুলোতে তো আছেই। সিএনজি মহাসড়ক থেকে উঠে গেলেও বারইয়াহাট পৌর বাজার ও মিরসরাই পৌর বাজারে মহাসড়কের ওপরে বীরদর্পে লাইন ধরে পার্কিংয়ে অবস্থান করছে রিকশা স্ট্যান্ড।
এসব গাড়ির বিআরটিএ থেকে নেই কোন অনুমোদন। অভিযোগ রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কিছু অসাধু কর্মকর্তাদের মাসিক মাসোহারা দিয়ে মহাসড়কে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এই অবৈধ যানবাহনগুলো।
এই বিষয়ে জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ এসআই একরামুল হক জানান, আমরা বিভিন্ন সময় নছিমন-করিমন (ভটভটি) বা ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা পেলে চাকা খুলে ফেলি, পাম্প ছেড়ে দিই। মহাসড়ক দ্বিতীয়বার দেখলে গাড়ি আটক করা হবে জানিয়ে দিই।
তিনি আরো বলেন মহাসড়কের এই অঞ্চলের বারইয়াহাট ও মিরসরাই পৌরসভার ৪ কিলোমিটার অংশ আমাদের দায়িত্বে নয় তাই সেখানে আমরা অভিযানও পরিচালনা করি না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ