রবিবার ২৯ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

জয় পেয়েছে খেলাঘর শেখ জামাল ও লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ 

স্পোর্টস রিপোর্টার : প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে জয় পেয়েছে খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি, শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ও লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ । খেলাঘর হারিয়েছে মোহামেডানকে। রূপগঞ্জ জয় পেয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়নের বিপক্ষে। আর শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব হারায় কলাবাগানকে।  গতকাল মিরপুরে জয় পেয়েছে খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি। মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে ৬ উইকেটে জিতেছে খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি। আগে ব্যাট করতে নেমে তানভির ইসলামের বাঁহাতি স্পিনে ৪৫.৪ ওভারে ১৮১ রানে অলআউট হয় মোহামেডান। তাদের ওপেনার জনি তালুকদার সর্বোচ্চ ৫৫ রান করেন। তানভির ৪টি উইকেট নিয়ে খেলাঘরের সফল বোলার ও ম্যাচসেরা। অমিত মজুমদার ও আল মেনারিয়ার হাফসেঞ্চুরিতে ৪১.৩ ওভারে ৪ উইকেটে ১৮২ রান করে খেলাঘর। ৭৬ রান করেন অমিত। আর ৫৪ রানে অপরাজিত ছিলেন মেনারিয়া। ১০ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে খেলাঘর। লিগে খেলা বর্তমান দলগুলো মধ্যে সবচেয়ে পুরনো দল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ৮২ বছর ধরে ঢাকার ক্রীড়াঙ্গনে প্রথম সারির ক্লাব হিসেবেই প্রতিষ্ঠিত। কিন্তু এতো বছর পর সেই ক্লাবটির এবার প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে টিকে থাকাই শঙ্কায় পড়েছে। লিগের শষ ম্যাচে  মোহামেডান হারলে রেলিগেশন লিগই খেলতে হতে পারে তাদের। খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির বিপক্ষে ৬ উইকেটে হারের পর শঙ্কাটা জোরালো হয়। ১০ ম্যাচে শেষে মোহামেডানের সংগ্রহ ৯ পয়েন্ট। তালিকার নবম স্থানে আছে তারা। এক পয়েন্ট কম নিয়ে তাদের পরে আছে ব্রাদার্স।

শেষ ম্যাচে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিপক্ষে খেলবে তারা। ব্রাদার্স সে ম্যাচে জিতলে এবং মোহামেডান নিজেদের শেষ ম্যাচে কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের বিপক্ষে হারলে রেলিগেশন লিগ খেলতে হবে  মোহামেডানকেই। আর এই ম্যাচ জিতে সুপার লিগে এক পা দিয়ে রাখলো খেলাঘর। ১০ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট তাদের।  শেষ ম্যাচে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে জিতলে নিশ্চিত হবে সুপার লিগ। তবে হারলেও সুযোগ থাকছে। সেক্ষেত্রে তালিয়ে থাকতে হবে অন্যদলগুলোর ফলাফলের উপর। ফতুল্লায় জয় পেয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। টানা দুই ম্যাচ হারের পর জয়ের দেখা পেয়েছে  শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। কলাবাগান ক্রীড়া চক্রকে তারা হারিয়েছে ৭৩ রানে। এই জয়ে ১০ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ছয় নম্বরে তারা। টস জিতে শেখ জামালকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় কলাবাগান। ব্যাটসম্যানরা খুব বেশি সুবিধা করতে পারেনি। তবে রাকিন আহমেদ (৭১), পিনাক ঘোষ (৪৯) ও তানবির হায়দারের অপরাজিত ৬১ রানে লড়াকু স্কোর করে শেখ জামাল। ৪৯.৫ ওভারে ২৬৩ রানে অলআউট হয় তারা। লক্ষ্যে নেমে ইলিয়াস সানির স্পিনে ভরাডুবি হয় কলাবাগানের ব্যাটিং লাইনআপের। তাইবুর রহমান ও মুক্তার আলী দুজনের ব্যাটেই আসে ৫১ রান। ইলিয়াস নেন ৪ উইকেট। ৪৭.৩ ওভারে ১৯০ রানে অলআউট হয় কলাবাগান। টানা তৃতীয় জয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে আবাহনী লিমিটেডকে ধরে ফেললো লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। ১০ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে যুগ্মভাবে শীর্ষে দুই দল। অবশ্য নেট রান রেটে পিছিয়ে রূপগঞ্জের এ ক্লাব। কলাবাগান ক্রীড়াচক্রকে ৭৩ রানে হারিয়ে শীর্ষ ছয় দলের মাঝে জায়গা করে নিয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। ফলে সুপার লিগে খেলার সম্ভাবনা টিকিয়ে রেখেছে দলটি। যদিও এর জন্য নিজেদের  শেষ ম্যাচ ছাড়াও বাকি দলগুলোর ফলাফলের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে শেখ জামালের। সাভারের বিকেএসপিতে জয় পেয়েছে রূপগঞ্জ। রূপগঞ্জ ৭ উইকেটে হারিয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে।  টস জিতে ফিল্ডিং নিয়ে তারা প্রতিপক্ষ ব্রাদার্সকে ১৭৮ রানে অলআউট করে। মিজানুর রহমান সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেন। মোহাম্মদ শহীদ ও আসিফ হাসান ৪টি করে উইকেট নিয়ে রূপগঞ্জের টার্গেট সহজ রাখেন। আব্দুল মজিদের অপরাজিত ৯৪ রানে ৩৭.৩ ওভারেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় রূপগঞ্জ। ৩ উইকেটে তারা করে ১৮৩ রান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ