শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

মিরপুর স্টেডিয়ামের ডিমেরিট পয়েন্টই বহাল

স্পোর্টস রিপোর্টার : অবশেষে বহালই রইল মিরপুর স্টেডিয়ামেম ডিমেরিট পয়েন্ট। আপিল করেও কোন কাজ হয়নি। শ্রীলংকার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামের ভাগ্যে জুটেছিল একটি ডিমেরিট পয়েন্ট। পরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এই শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করে। তবে বিসিবির সেই আপিলে ইতিবাচক কোনো ফল মিলল না। বহালই থাকল ডিমেরিট পয়েন্ট। আপিলের শুনানি শেষে আইসিসির জেনারেল ম্যানেজার জিওফ অ্যালারডাইস ও ক্রিকেট কমিটির চেয়ারম্যান অনিল কুম্বলে তাদের চূড়ান্ত প্রতিবেদনে ম্যাচ রেফারি ডেভিড বুনের রেটিংকে সঠিক উল্লেখ করেছেন। ম্যাচ রেফারির প্রতিবেদন, ম্যাচ ও গ্রাউন্ডের ভিডিও এবং বিসিবির নিজেদের পক্ষে দাঁড় করানো যুক্তিগুলো দেখে সিদ্ধান্ত নেন তারা। গত ৮ ফেব্রুয়ারি মিরপুরে শুরু হয়েছিল বাংলাদেশ-শ্রীলংকার দ্বিতীয় টেস্ট। ১০ মার্চ মাত্র আড়াই দিনেই টেস্টের ভাগ্য নির্ধারিত হয়। অর্থাৎ ৪০ উইকেট পড়েছে এই সময়ে, রান উঠেছিল মাত্র ৬৮১। ব্যাটসম্যানদের জন্য উইকেটে ছিল না কিছুই। আগে ব্যাট করে শ্রীলংকা ২২২ রানে অলআউট হওয়ার পর বাংলাদেশ ১১০ রানে গুটিয়ে যায়। ১১২ রানের লিড নিয়ে শ্রীলংকা দ্বিতীয় ইনিংসে ২২৬ রান করলে বাংলাদেশের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৩৯ রানের। কিন্তু, বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১২৩ রান করতে সমর্থ হয়। ২১৫ রানে জয় পায় শ্রীলংকা। এমন উইকেটকে তাই আইসিসি ‘গড়পড়তার নিচে’ উল্লেখ করে এবং শাস্তি হিসেবে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট দেয়। ম্যাচ রেফারি তার রিপোর্টে উল্লেখ করেছিলেন, ম্যাচজুড়ে ছিল অসমান বাউন্স ও অধারাবাহিক টার্ন। বিসিবি আপিল করলে তা খতিয়ে দেখার দায়িত্ব পড়ে আইসিসির ক্রিকেট কমিটির জেনারেল ম্যানেজার জিওফ্রি অ্যালারডাইস এবং ক্রিকেট কমিটির চেয়ারম্যান অনিল কুম্বলের ওপর। তারা ম্যাচ রেফারির দেয়া প্রতিবেদন সঠিক বলেই রায় দিয়েছেন। ফলে আইসিসি বহাল রাখছে শাস্তিটি। ৪ জানুয়ারি আইসিসির নতুন নিয়ম অনুযায়ী, পাঁচ বছরের মধ্যে কোনো ভেন্যু পাঁচটি ডিমেরিট পয়েন্ট পেলে সেই ভেন্যু ১২ মাসের জন্য যে কোনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজনে যোগ্যতা হারাবে। আর ১০ ডিমেরিট পয়েন্ট পেলে নিষিদ্ধ হবে দুই বছর। এর আগে সেপ্টেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে বাজে আউটফিল্ডের জন্য মিরপুর পেয়েছিল ‘পোওর’ রেটিং। গত ৪ জানুয়ারি আইসিসির সংশোধিত পিচ ও আউটফিল্ড পর্যবেক্ষণ প্রক্রিয়া অনুযায়ী, ডিমেরিট পয়েন্ট সক্রিয় থাকবে ৫ বছর পর্যন্ত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ