শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

আবারো নারিনের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ

আবারো প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে সুনীল নারিনের বোলিং অ্যাকশন। এবার পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই স্পিনারের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ করেছেন আম্পায়াররা। বুধবার শারজাহতে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরসের বিপক্ষে ম্যাচে লাহোর কালান্দার্সের এই অফ স্পিনারের বোলিং অ্যাকশন সন্দেহজনক মনে হয়েছে আম্পায়ারদের। এই মুহূর্তে পরীক্ষা ছাড়াই নারিন টুর্নামেন্ট চালিয়ে যেতে পারবেন। তবে টুর্নামেন্টের ‘সতর্ক তালিকায়’ থাকবে তার নাম। আবার অভিযোগ উঠলে তিনি আর টুর্নামেন্টে খেলতে পারবেন না। নারিনের বোলিং অ্যাকশনের রিপোর্ট ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজকে (সিডব্লিউআই) পাঠাবে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। ওয়েস্ট ইন্ডিজই এখন তার বোলিং অ্যাকশন নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে। এর আগে বেশ কয়েকবার নারিনের বোলিং অ্যাকশন প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল। ২০১৪ চ্যাম্পিয়নস লিগ টি-টোয়েন্টির সময় দুইবার তার বোলিং নিয়ে সন্দেহ করেন আম্পায়াররা। বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কাজ করতে ওয়েস্ট ইন্ডিজে ২০১৫ বিশ্বকাপ দল থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেন তিনি। ২০১৫ আইপিএলে ফিরে আবারো প্রশ্নবিদ্ধ হয় তার বোলিং। তার অফ স্পিন নিষিদ্ধ হয়। পরে বোলিংয়ের ছাড়পত্র পেলেও তার নাম বিসিসিআইয়ের ‘সতর্ক তালিকায়’ রাখা হয়। নারিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরেন ২০১৫ সালের নভেম্বরে। কিন্তু প্রথম সিরিজেই আবার তার বোলিং অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। এমনকি আইসিসি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর বোলার হয়েও বোলিং থেকে নিষিদ্ধ হন তিনি। বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কাজ করায় খেলতে পারেননি ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। ২০১৬ আইপিএলের আগে আবার তিনি বোলিংয়ের ছাড়পত্র পান। আগামী ৭ এপ্রিল শুরু হচ্ছে এবারের আইপিএল। কলকাতা নাইট রাইডার্স গত মৌসুম থেকে যে দু’জন খেলোয়াড়কে ধরে রেখেছে তাদের একজন নারিন। পিএসএলে আবার নারিনের বোলিং নিয়ে অভিযোগ উঠলে কিংবা ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরীক্ষায় অ্যাকশন অবৈধ প্রমাণিত হলে আইপিএলে তার খেলাও শঙ্কার মুখে পড়ে যাবে। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ