মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো ভারতের কথা নাও শুনতে পারে-চীনা বিশ্লেষক

১৩ মার্চ, গ্লোবাল টাইমস : চীন ও ভারতের ঐতিহ্যবাহী সম্পর্কের মাঝে এই প্রথমবারের মত চীনের একজন বিশ্লেষক হু ঝিয়ং গ্লোবাল টাইমসকে বলেছেন, ভারতের কথা দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো আর নাও শুনতে পারে। এ অঞ্চলে চীনের প্রভাব নিয়ে যখন ভারত সতর্ক ঠিক তখন এ চীনা বিশ্লেষক বলছেন, ভারত দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখতে চাইলেও সম্ভবত দেশগুলো ভারতের কথা নাও শুনতে পারে।

চীনের সরকারি জাতীয় দৈনিক গ্লোবাল টাইমসকে হু আরো বলেন, তার দেশ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে সিল্ক রুটের মাধ্যমে যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলছে এবং এধরনের বেল্ট এ্যান্ড রোড উদ্যোগে বাংলাদেশে প্রকল্প বাস্তবায়নের চেষ্টা করছে তখন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে বড় ধরনের পররাষ্ট্রনীতি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছেন। ভারত তার প্রতিবেশি দেশ ভুটান, বাংলাদেশ ও নেপালের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদারের চেষ্টা করছে কিন্তু সম্ভবত এ কৌশল ব্যর্থ হতে পারে।

গ্লোবাল টাইমস চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখপাত্র লু ক্যাংএর উদ্ধৃতি দিয়ে বলছে, কম্যুনিষ্ট এ রাষ্ট্রটি পারস্পরিক আস্থার ভিত্তিতেই ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়ন করতে চায়। সাংহাই এ্যাকাডেমি অব সোশ্যাল সাইন্সের ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল রিলেশন’এর ফেলো হু ঝিয়ং বলেন, ভারত তার প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্কন্নোয়নের চেষ্টা যতই করুক তা কাজ করবে না। নেপালে নির্বাচিত কে পি অলি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেশটির দায়িত্বভার নেওয়ার বিষয়টি ভারতের জন্যে সাংঘাতিক এক বড় আঘাত হিসেবে মন্তব্য করেন হু।

তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো এবং মালদ্বীপ ও শ্রীলঙ্কা চীনের বেল্ট এন্ড রোড ইনেশিয়েটিভ বা সিল্করুটে খুবই উদ্যোগী হয়ে অংশগ্রহণ করছে। ভারতও কিবলা পরিবর্তন করে এ অঞ্চলে সততার সঙ্গে চীনের এ উদ্যোগে অংশগ্রহণ করতে পারে। যদি ভারত তা না করে বা পশ্চিমা নীতি পরিবর্তন না করে তাহলে তার সহযোগী দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো এধরনের হস্তক্ষেপ মেনে নেবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ