মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০
Online Edition

পত্নীতলায় গাছে ঝুলিয়ে এক পকেট মারকে নির্যাতন ॥ থানায় মামলা দায়ের

পত্নীতলায় এক পকেটমারকে জনতার সামনে নির্যাতন চালানো হচ্ছে

পত্নীতলা (নওগাঁ) সংবাদদাতা: নওগাঁর পত্নীতলায় রশি দিয়ে হাত পা বেঁধে গাছে ঝুলিয়ে শফিকুল ইসলাম (৩৫) নামের এক পকেট মারকে গ্রেফতারকৃত নুরনবী শারীরিক নির্যাতন চালিয়েছে বলে স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা অভিযোগে জানাই। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে গত শুক্রবার ২রা মার্চ বিকেলে হাটের মধ্যে পত্নীতলা উপজেলার আকবরপুর ইউনিয়নের সুরহট্টি মোল্লাপাড়া গামের মৃত অলি মোহাম্মদের পুত্র শফিকুল ইসলাম (৩৫) পকেট কাটতে গিয়ে স্থানী জনতার হাতে ধরা পরেন। এ সময় উপজেলার ভগবানপুর গ্রামের ইজাবুল হোসেনর পুত্র নূরনবী (২২) পকেট মার শফিকুল ইসলাম (৩৫) এর হাত পা বেঁধে আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে গাছে ঝুলিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় প্রকাশ্য জনতার সামনে শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে পালিয়ে যায়। এ শারীরিক নির্যাতনের ভিডিও ইন্টানেটে প্রকাশের পর পত্নীতলা থানার ওসি মোঃ মাজাহারুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা এক অভিযান চালিয়ে ঘটনার মূলহোতা নুরনবী নামের এক যুবককে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরন করেছে বলে জানা গেছে। আহত পকেটমার শফিকুল ইসলামকে তার নিজ বাড়ী থেকে উদ্ধার করে পুলিশ সদস্যরা পত্নীতলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। এ ব্যাপারে আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেনের সাথে মুঠফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন ঘটনাটি কখন ঘটেছে আমি জানি না। এ ব্যাপারে পত্নীতলা থানার ওসি মোঃ মাজাহারুল ইসলামরে সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমরা আহত পকেট মার শফিকুল ইসলামকে উদ্ধার করেছি, এবং এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে নুরনবী নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছি। এলাকাবাসী এ শারীরিক নির্যাতনের সাথে জড়িত আসামীদের কঠোর শাস্তির দাবী জানিয়েছে। এ ব্যাপারে পত্নীতলা থানায় একটি মামলা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ