মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০
Online Edition

উলিপুরে মজুরী বৈষম্যের শিকার নারী শ্রমিকেরা

কুড়িগ্রামের উলিপুরে বোরো ধানক্ষেত পরিচর্যায় ব্যস্ত নারী শ্রমিকরা

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা: কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় মজুরী বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন নারী শ্রমিকেরা।
নারী শ্রমিকরা এখনো পুরুষ শ্রমিকের চেয়ে কম মজুরি পাচ্ছেন।  কাজে ফাঁকি দেয়ার প্রবণতা কম থাকায় দিন দিন বিভিন্ন কাজে নারী শ্রমিকের চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে।
জানা গেছে, চলতি বোরো মৌসুমে সদ্য রোপণকৃত ধান চারাগাছগুলো বেড়ে উঠতে শুরু হওয়ায় ধানগাছগুলোর পরিচর্যা অপরিসীম হয়ে পড়েছে।
এতে তীব্র শ্রমিক সংকট দেখা দিলে নারী শ্রমিকেরা জড়িয়ে পড়েন এ কাজে।
পুরুষ দিনমজুরা বেশি পারিশ্রমিকের আশায় দেশের বিভিন্ন জায়গায় চলে যাওয়ায় স্থানীয় গৃহস্থের একমাত্র ভরসা নারী শ্রমিক।
অসচ্ছল  পরিবার, স্বামী পরিত্যাক্তা, বিধবা ও অভাব অনাটনে জড়িয়ে থাকা এসকল নারীরা শ্রম বিক্রি করতে গেলে এ সুযোগ নিয়ে গৃহস্থরা তাদেরকে সঠিক মজুরী না দিয়ে স্বল্প মজুরী দিয়ে কাজ করে নিচ্ছেন।
এদিকে পুরুষ শ্রমিকেরা প্রতিদিন ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা হারে মজুরী পান। একই কাজে নারী শ্রমিকেরা ১২০ থেকে ১৫০ টাকা মজুরী পাচ্ছেন।
এতে করে পুরুষ শ্রমিকের চেয়ে নারী শ্রমিকের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পেলেও বাড়ছেনা তাদের মজুরী।
উপজেলার পা-ুুল ইউনিয়নের শ্রমিক সুফিয়া বেগম (৪৫), শাহানাজ বেগম (৩৮), মালতি বেওয়া (৫০), হাতিয়ার সাহেরা বেওয়া (৫৫), সহিদা (৩৫), দলদলিয়া ইউনিয়নের জাহেরা (৫০) পৌর সভার নারিকেল বাড়ি গ্রামের কাজলী (৪৫), হাজেরা বেওয়া (৫০), আয়শা (৪৫) সহ অনেকে জানান, ক্ষেতে খামারে যেভাবে পরিশ্রম করি তার তুলনায় আমাদের মজুরী অতি সামান্য । স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে কোন প্রকার সুযোগ সুবিধা পান কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে পৌর সভার আয়শা, হাজেরা, কাজলী বলেন, কিছু চাইতে গেলে ওয়ার্ড কাউন্সিলর টাকা চায় টাকা ছাড়া কিছু দেয় না। তাই অল্প মজুরীতে কাজ করতে বাধ্য হচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ