শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

মিরসরাইয়ে এক রাতে তিন বাড়ি ডাকাতি মালামাল লুট

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা: চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে এক রাতেই তিন বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের গাছবাড়িয়া গ্রামের নাছির মাষ্টার বাড়ি ও খইয়াছড়া ইউনিয়নের মসজিদিয়া গ্রামের তোয়ানি ভবন, সবুজ ভবনে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাত দল পরিবারের সদস্যদের বেঁধে রেখে তিন পরিবার থেকে নগদ টাকাসহ প্রায় আড়াই লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।
ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের নাছির মাষ্টার জানান, রাত পৌনে ৩টার দিকে ৫-৬ জনের একটি ডাকাতদল তার ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে পরিবারের সব সদস্যকে বেঁধে রাখে। পরে আলমারি, শোকেজ ভেঙ্গে নগদ ৬ হাজার টাকা, ৫টি মোবাইল ফোন, দুই ভরি স্বর্ণালংকাসহ মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। মসজিদিয়া গ্রামের সবুজ ভবনের নুর হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাত ৩টার দিয়ে ঘরের লোহার গেইটের তালা ভেঙ্গে মুখোশ পড়া ৬ জন ডাকাত ঘরে ঢুকে তাকে (নুর হোসেনকে), গৃহবধু রাজিয়া আক্তারকে মারধর করে এবং অন্য সদস্যদের বেঁধে রাখে। পরে তারা আলমারি ভেঙ্গে নগদ ৫০ হাজার টাকা, দুই ভরি স্বর্ণালংকার, তিনটি মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। নুর হোসেন জানান, তাদের ঘর ডাকাতি শুরুর ৫ মিনিট আগেই ওই এলাকায় পুলিশ টহল দিয়ে যায়। তোয়ানি ভবনের রনজিত দাশ জানান, মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে বাড়ির গেইটের তালা ও ঘরের গেইটের তালা ভেঙ্গে ফেলে। ডাকাত দলের তালা ভাঙ্গার শব্দ পেয়ে ঘর থেকে মোবাইল ফোনে পুলিশ ও এলাকার কয়েকজনের সহযোগীতা চাইলে তারা আসায় ডাকাতদল পালিয়ে যায়। ডাকাতির খবর পেয়ে বুধবার (২১ফেব্রুয়ারি) সকালে নিজামপুর তদন্ত কেন্দ্রের আইসি উপ-পরিদর্শক কামাল হোসেন, চেয়ারম্যান ফজলুল কবির ফিরোজ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ সাইরুল কবির জানান, একটি বাড়িতে ডাকাতদল হানা দেয়ার খবর পেয়ে দ্রুত সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। ওই বাড়ির তালা ভাঙ্গালেও পুলিশ যাওয়ার কোন মালামাল নিয়ে পারেনি। আরো দুই বাড়ি ডাকাতির কথা শুনলেও থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। তবে এধরণের অপরাধী সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ