সোমবার ০৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ইসলামবিদ্বেষী সেই কাউন্সিলরের প্রতি অনাস্থা ॥ পদত্যাগে অস্বীকৃতি

২২ ফেব্রুয়ারি, হাফিংটন পোস্ট : ধারাবাহিকভাবে মুসলিম ও কৃষ্ণাঙ্গ বিরোধী ফেসবুক পোস্ট নিয়ে সৃষ্ট বিতর্কে পদত্যাগের আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের কাউন্সিল সদস্য টম হ্যারিসন।

সম্প্রতি মার্কিন স্কুলগুলোতে ইসলাম নিষিদ্ধের জন্য একটি ভিডিও পোস্ট করেন টম হ্যারিসন নামে এই সদস্য। এরপর থেকেই তাকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়ে আসছিলেন শহরটির মেয়র হ্যারি লা’রসিলিয়ারে। এতে সাড়া না দেয়ায় তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক নিন্দা জানাতে সোমবার কাউন্সিল ভোটের আয়োজন করা হয়। এর পক্ষে ৭টি ভোট পড়ে আর বিপক্ষে ভোট দেন কেবল হ্যারিসন নিজে।

‘জয়েন্ড হ্যান্ডস অ্যাক্রস আমেরিকা ফর ট্রাম্প’ নামের একটি ফেসবুক গ্রুপ থেকে গত মঙ্গলবার ভিডিওটি হ্যারিসন তার পেজে শেয়ার করেন।

ভিডিওটিতে স্কুলে মুসলিম ছাত্রছাত্রীদের প্রার্থনা করার কয়েকটি দৃশ্য এবং হিজাব পরিহিত ছাত্রীদের ছবির শিরোনামে লেখা রয়েছে ‘যদি আপনি মনে করেন আমেরিকান স্কুলে ট্রাম্পের ইসলাম নিষিদ্ধ উচিত তাহলে এটি শেয়ার করুন’।

ভিডিওটি নিয়ে তুমুল বিতর্কের পর শহরটির মেয়র হ্যারি লা’রসিলিয়ার তাকে পদত্যাগরে আহ্বান জানান। পরের দিন বুধবার সন্ধ্যার দিকে ভিডিওটি তিনি তার ফেসবুক পেজ থেকে সরিয়ে ফেলেন।

কাউন্সিলে ভোটের পর সোমবার বিকালে এক বিবৃতিতে মেয়র হ্যারি লা’রসিলিয়ার বলেন, ‘আমাদের বহুবিচিত্র সম্প্রদায়ের সেবা করার জন্য একজন কাউন্সিল সদস্য হিসেবে হ্যারিসনের আচরণ অশোভন। আমি মনে করি তার এই ফেসবুক পোস্ট চরম ঘৃণিত এবং বিশ্বাস করি এটি আমাদের শহরের জন্য একটি কলঙ্ক এবং এটি আমাদের প্রতিনিধিত্ব করে না।’

এই বির্তকে হ্যারিসন পদত্যাগ করতে অস্বীকার করেছেন বলে হ্যারি লা’রসিলিয়ারে জানান।

হ্যারিসনকে আনুষ্ঠানিকভাবে ভৎসনা জানাতে কাউন্সিলের ভোটে সাতজন সমর্থন জানান। একমাত্র বিরোধিতা করেন হ্যারিসন নিজে।

 মেয়র বলেন, ‘ ভোটে হ্যারিসন নিজেই ছিলেন একমাত্র ভিন্নমত পোষণকারী।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ