শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

২২ ফেব্রুয়ারি সমাবেশের অনুমতি এখনও পায়নি বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তির দাবিতে ২২ ফেব্রুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বা নয়াপল্টনে সমাবেশ করার এখনও অনুমতি পায়নি বিএনপি। ডিএমপি’র পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আইনের কিছু বাধা আছে। গতকাল সোমবার বিএনপির চার সদস্যের প্রতিনিধি দল ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাদের এ কথা বলা হয়। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে দলটিকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে, ঘরোয়া পরিবেশে সভা-সমাবেশ করতে চাইলে তারা সহযোগিতা করবে।
 সোমবার সকাল ১০টার দিকে ডিএমপি’র কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়ার সঙ্গে দেখা করেন বিএনপির প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। দলটির ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট আহমদ আযম খানের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ।
সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ বলেন, ডিএমপি কমিশনারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আইনে কিছু বাধা আছে। কমিশনার প্রতিনিধি দলকে বলেছেন, আপনারা প্রস্তুতি নিতে থাকেন। আমরাও চিন্তা করি, কী করা যায়।  আমরা বলেছি, আমাদের চলমান আন্দোলন শান্তিপূর্ণ চলছে। আমরা আইনের শাসনে বিশ্বাসী। আমাদের সমাবেশও শান্তিপূর্ণ হবে। বিএনপি নেতা আজাদ আরও বলেন, ডিএমপির পক্ষ থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে,  বিএনপি ঘরোয়া পরিবেশে  সভা-সমাবেশ করতে চাইলে তারা সহযোগিতা করবে।  তবে আমরা সমাবেশের অনুমতির বিষয়ে ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে আবারও দেখা করবো।
জানা গেছে, সোহরাওয়ার্দি উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি এখন দেবে না সরকার। এটি ডিএমপি’র পক্ষ থেকে বিএনপিকে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে নয়াপল্টনের বিষয়ে তারা কিছু বলেনি। বিএনপি এখন নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার চেষ্টা চালাচ্ছে।
প্রসঙ্গত, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি  বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদ- দিয়েছেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামান। ওই রায় ঘোষণার পর থেকে খালেদা জিয়াকে পুরানো ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের কারাগারে রাখা হয়। এর প্রতিবাদে বিএনপি ধারাবাহিকভাবে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ