মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

৭তম দিনেও মিলেনি বেগম জিয়ার রায়ের কপি

স্টাফ রিপোর্টার : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রায়ের কপি গতকাল ৭তম দিনেও পাওয়া যায়নি। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার পর দেয়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।
গতকাল বুধবার বেলা ৪টায় খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, আজ বিকেলে (বুধবার) বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায়ের সার্টিফাইড কপি দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু আদালত থেকে জানানো হয়েছে আগামীকাল (আজ) বৃহস্পতিবার রায়ের কপি দেয়া হতে পারে।
অপর আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায়ের কপি সরবরাহের জন্য চূড়ান্তভাবে ভুলত্রুটি সংশোধন করে আদালতের নকল শাখায় পাঠানো হয়েছে। নকল শাখা থেকে আমাদের জানানো হয়েছে বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার পর রায়ের কপি সরবরাহ করা হবে।
ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের পেশকার মোকাররম হোসেন জানান, ৬৩২ পাতার রায় এতো কম সময়ে সার্টিফাইড কপি সরবরাহ করা কষ্টকর। আমরা চেষ্টা করছি দ্রুত করতে। এর আগে গত সোমবার আদালতে ৩ হাজার ফলিও (যে কাগজে রায়ের নকল দেয়া হয়) জমা দেন তার আইনজীবীরা।
এদিকে বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পাননি সাত চিকিৎসক। গতকাল বুধবার সকালে ওই সাত চিকিৎসক খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নাজিম উদ্দিন রোডের পুরানো কেন্দ্রীয় কারাগারে যান। এরপর জেল সুপার বরাবর দরখাস্ত করা হলেও তাদের খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে দেয়া হয়নি।
সাত চিকিৎসক হলেন, অধ্যাপক ডা. সিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ, অধ্যাপক ডা. মো. শাহাব উদ্দিন, অধ্যাপক ডা. মো. আবদুল কুদ্দুস, অধ্যাপক ডা. এস এম রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, সহযোগী অধ্যাপক ডা. সাইফুল ইসলাম সেলিম, ডা. মো. ফাওয়াজ হোসেন শুভ ও ডা. মনোয়ারুল কাদির বিটু।
গতকাল দুপুরে এই তথ্য নিশ্চিত করে অধ্যাপক ডা. এস এম রফিকুল ইসলাম বাচ্চু বলেন, সকালে আমরা সাতজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে পুরানো ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন জেলগেটে যাই। এরপর আমরা এই উদ্দেশ্যে জেল সুপার বরাবর একটা দরখাস্ত দেই। কিন্তু পরবর্তীতে ডিআইজি প্রিজন আমাদের জানান যে, আমরা অনুমতি পাচ্ছি না।
গত ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ৫ বছর ও দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামীর ১০ বছর করে কারাদ্ণ্ড দিয়েছেন আদালত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ