মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

খালেদা জিয়ার মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলবে -মির্জা ফখরুল

বিএনপি চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : খালেদা জিয়ার মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলবে বলে ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। দুপুরে এক ঘন্টার মানববন্ধন কর্মসূচির সমাপনি বক্তব্যে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, শত প্রতিকূলতার মধ্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার এই কারাবাসের বিরুদ্ধে আপনাদের যে ক্ষোভ, আপনাদের যে হতাশা, আপনাদের বেগম জিয়ার প্রতি যে ভালোবাসা সেটা আপনারা প্রকাশ করেছেন। আজকে এই মানববন্ধনের মধ্যদিয়ে এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, বেগম জিয়া এদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা। তাকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে সাজা দিয়েছে। আমরা স্পষ্টভাষায় বলে দিতে চাই, দেশনেত্রীর মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত আমাদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলবে।
মির্জা ফখরুল নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, দেশনেত্রী কারাগারে যাবার আগে বলে গেছেন, আপনাদের ধৈর্য্য ধরতে, শান্ত হতে এবং শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি চালিয়ে যেতে। আমাদের এই কর্মসূচি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করবার জন্যে, আমাদের এই কর্মসূচি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্যে। এই মুহূর্তে বেগম জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। তার মুক্তি আমরা চাই।
তিনি বলেন, আমরা পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, দেশনেত্রীকে নিয়েই আমরা আগামী নির্বাচনে যাবো। দেশনেত্রী ছাড়া এ দেশে কোনো নির্বাচন হবে না। আমরা সহায়ক সরকার চাই, আমরা একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন চাই। শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন করে দেশের জনগণের আশা-আকাক্সক্ষার বাস্তবায়ন করতে চাই। তাই আসুন শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন করে দেশনেত্রীকে কারামুক্ত করি। একই সঙ্গে দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করা বন্ধ করতে সরকারের প্রতি আহ্বানও জানান বিএনপি মহাসচিব।
গতকাল সকাল ১০টার পর থেকেই জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির হাজারো নেতা-কর্মী জড়ো হতে থাকেন। একপর্যায়ে সামনের রাস্তার একটি অংশ দিয়ে যান চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। তোপখানার মোড় থেকে হাইকোর্টের কদম ফোয়ারা পর্যন্ত পুরো এলাকায় বিএনপির হাজার হাজার নেতাকর্মী-সমর্থক মানববন্ধনে অংশ নেন।
স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, দেশনেত্রীকে অন্যায়ভাবে সাজা দেয়া হয়েছে। এটা দেশের মানুষ তা গ্রহণ করেনি। অবিলম্বে তাকে মুক্তি দিতে হবে, আমাদের সকল নেতার সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। চার দিন ধরে ডিভিশন না দিয়ে সরকার আমাদের নেত্রীকে একজন অর্ডিনারী প্রিজনার হিসেবে কষ্ট দিয়েছে। সরকার জেল কোড ভঙ্গ করেছে। আমরা সরকারের এহেন কর্মকান্ডের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, যতই ষড়যন্ত্র হোক, আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, বাংলাদেশে নির্বাচন হবে এবং সেই নির্বাচন বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়েই হবে। তাকে ছাড়া কেউ নির্বাচন চিন্তা করলে সেটা হবে দুঃস্বপ্ন।
জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সকাল ১১টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত এই কর্মসূচি পালিত হয়। তোপখানার মোড় থেকে হাইকোর্টের কদম ফোয়ারা পর্যন্ত পুরো এলাকায় হাজার হাজার নেতা-কর্মী-সমর্থক এই মানববন্ধনে অংশ নেয়। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে নেতা-কর্মী জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমবেত হয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার কিছু হলে জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে ইত্যাদি শ্লোগান দিতে থাকে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, আইনজীবী, কৃষিবিদসহ বিভিন্ন পেশা-শ্রেণির নেতা-কর্মীরা এতে সমবেত হয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেন। এ মানববন্ধনে বিপুলসংখ্যক মহিলা কর্মী-সমর্থক অংশ নেন। তিল পরিমাণ ঠাঁই ছিলো না এরকম পরিস্থিতির মধ্যে মানববন্ধনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খরু মাহমুদ চৌধুরীসহ নেতৃবৃন্দ ফুটপাতে উঠে মাইক ছাড়া বক্তব্য রাখেন।
এই মানববন্ধনে বিএনপির কামাল ইবনে ইউসুফ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকত উল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, আবদুল আউয়াল মিন্টু, শামসুজ্জামান দুদু, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, শওকত মাহমুদ, মাহমুদুল হাসান, মিজানুর রহমান মিনু, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, জয়নাল আবদিন, ভিপিজয়নাল, জয়নাল আবদিন ফারুক, গোলাম আকবর খন্দকার, হাবিবুর রহমান হাবিব, অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া, আবদুস সালাম, কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, ফজলুল হক মিলন, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সাখাওয়াত হোসেন জীবন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, শিরিন সুলতানা, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, আবদুস সালাম আজাদ, আমিরুল ইসলাম আালিম, শামীমুর রহমান শামীম, নিলোফার চৌধুরী মনি, হেলেন জেরিন খান, শাম্মী আখতার, রাশেদা বেগম হীরা, আবদুল আউয়াল খান, কাদের গনি চৌধুরী, তাবিথ আউয়াল, বেবী নাজনীন, নেওয়াজ হালিমা আরজু, অপর্না রায়, নিপুর রায় চৌধুরীসহ নেতৃবৃন্দ।
মহানগরের কাজী আবদুল বাশার, মুন্সি বজলুল বাসিত আনজু, আহসানউল্লাহ হাসান, তানজীর আহমেদ রবিন, যুব দলের সাইফুল ইসলাম নিরব, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, মোরতাজুল করীম বাদরু, স্বেচ্ছাসেবক দলের শফিউল বারী বাবু, মুক্তিযোদ্ধা দলের ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, সাদেক আহমেদ খান, মহিলা দলের আফরোজা আব্বাস, সুলতানা আহমেদ, জাসাসে অধ্যাপক মামুন আহমেদ, শায়রুল কবির খান, শাহিনুল ইসলাম শায়লা, ছাত্রদলের মামুনুর রশীদ, আসাদুজ্জামান আসাদ, মৎস্যজীবী দলের রফিকুল ইসলাম মাহতাব, তাঁতী দলের আবুল কালাম আজাদ, উলামা দলের এম এ মালেক, শাহ নেসারুল হক প্রমুখ নেতবৃন্দ ছিলেন।
২০ দলীয় জোটের কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, লেবার পার্টির একাংশের মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ফরিদ উদ্দিন, অপর অংশের হামদুল্লাহ মেহেদি, এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ, সাহাদাত হোসেন সেলিম, জাগপা‘র খন্দকার লুৎফর রহমান, ন্যাপের গোলাম মোস্তফা, জমিয়তে উলামা ইসলামের মুফতি মহিউদ্দিন ইকরাম, এনপিপি‘র ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, এনপিপির গোলাম মূর্তজা, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, ডিএল‘র সাইফুদ্দিন মনি প্রমুখ নেতৃবৃন্দ ছিলেন। 
মানববন্ধনের এই কর্মসূচি উপলক্ষে গতকাল সকাল থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। কাছাকাছি রাখা হয় জল কামানের গাড়িসহ পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার কয়েকটি মাইক্রোবাস।
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপি দুইদিন বিক্ষোভ কর্মসূচির পর শনিবার ঢাকাসহ সারাদেশে তিনদিনের টানা কর্মসূচি ঘোষণা করে যার প্রথম কর্মসূচি মানববন্ধন।
আজ মঙ্গলবার হবে ঢাকাসহ সারা দেশে অবস্থান এবং আগামীকাল বুধবার অনশন কর্মসূচি।
সাভার সংবাদদাতা : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সাভারের আশুলিয়ায় বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেছে ঢাকা জেলা বিএনপি ও অংঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীর। গতকাল সোমবার সকালে ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ডা. দেওয়ান মোহাম্মদ সালাউদ্দিন বাবুর নেতৃত্বে মিছিলটি ঢাকা-টাঙ্গাইল সড়কের সরকার মার্কেটে এলাকায় অনুষ্ঠিত হয়। বিক্ষোভ মিছিলে ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদলসহ অংঙ্গ সংগঠনের সহ¯্রাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। আশুলিয়ার ছয়তলা বাসষ্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে সরকার মার্কেট পর্যন্ত গিয়ে শেষ হয়। পরে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তারা বলেন, ‘৩ বারের প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে। তাকে মুক্তি দেয়া না হলে ঢাকার উত্তর প্রবেশদ্বার বন্ধ করে অচল করে দেয়া হবে।’ এছাড়া বেগম জিয়ার মুক্তির দাবিতে ঢাকা জেলা বিএনপি আগামী সকল কর্মসূচিতে সরকারের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে রাজপথে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। এসময় জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাপদক রেজাউল কবির পল, রাশেদুল আহসান রাশেদ, ঢাকা জেলা যুবদলের সভাপতি নাজিম উদ্দিন ভিপি, স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় নেতা ইলিম মোহাম্মদ নাজমুল হোসেন, ঢাকা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আবদুর রহমান বাবুল, আশুলিয়া থানা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আসাদুজ্জামান মহন, আশুলিয়া থানার সেচ্ছাসেবকদল সাধারণ সম্পাপদক জিল্লুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
অন্যদিকে কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারর্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিশঃত মুক্তির দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ে মানববন্ধন করেছে বিএনপি পন্থী শিক্ষকরা। সোমবার দুপুরে বিশ^বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের পাদদেশে জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয় জাতীয়তাবাদী শিক্ষক-শিক্ষার্থী কর্মকর্তা, কর্মচারী ফোরামের ব্যানারে তারা এ মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করেন তারা।
মানববন্ধন থেকে এসময় বিএনপি পন্থী শিক্ষকরা অবিলম্বে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেন অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দিলে তারা ক্যাম্পাসে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি প্রদান করে তারা বলেন সরকার বিএনপিকে নির্ধন করার জন্য কাজ করছে।
গাজীপুর সংবাদদাতা : খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে গাজীপুরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। সোমবার সকালে গাজীপুর মহানগর বিএনপির ব্যানারে নগরীর ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা ও কেন্দ্রীয় শ্রমিক দলের কার্যকরী সভাপতি সালাহ উদ্দিন সরকার, জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শিল্পপতি সোহরাব উদ্দিন, সাবেক ছাত্রনেতা হুমায়ূন কবীর রাজু, ছাত্রদল নেতা জিয়াউল হাসান স্বপন, যুবদল নেতা জাহাঙ্গীর হাজারী প্রমুখ।
এছাড়া চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় গাজীপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী ছাইদুল আলম বাবুলের নেতৃত্বে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।এসময় জেলা বিএনপির ভাইসপ্রেসিডেন্ট কুতুবুলআলম, সাখাওয়াত হোসেন সেলিম,মনিরুজ্জামান খান লাবলু, ছাত্রদল নেতা নাসির উদ্দিন, বেলায়েত হোসেন মোড়লসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
মানববন্ধনে সভায় বক্তারা বিএনপির চেয়ারপার্সন তিন বারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তি ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সহ দেশের সকল নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।
নরসিংদী সংবাদদাতা : গতকাল সোমবার নরসিংদী প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে নরসিংদী জেলা বিএনপি। সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত স্থায়ী এ মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তৃতা করেছেন, নরসিংদী জেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি সুলতান উদ্দিন মোল্লা, জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মাষ্টার, সহ-সভাপতি ও নরসিংদী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মনজুর এলাহী, সাবেক এমপি  রোকেয়া আহমেদ লাকী, সহ-সভাপতি এড. আব্দুল বাছেদ ভূঁইয়া, ফায়জুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক হারুন-অর রশিদ, আকবর হোসেন, শহর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক ফারুক উদ্দিন ভূঁইয়া, নরসিংদী সদর থানা বিএনপি’র সভাপতি আবু সালেহ চৌধুরী। এছাড়া মানববন্ধনে জেলা বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনসমূহের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধন চলাকালে পুলিশী উপস্থিতি দেখা গেলেও তারা  মানববন্ধনে কোন বাধা দেয়নি। বক্তাগণ অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দানের জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান।
মেহেরপুর জেলা সংবাদদাতা : দাবিতে মানববন্ধন করেছে মেহেরপুর জেলা বিএনপি। গতকাল সোমবার সকাল ৯টার দিকে কাসারী বাজারস্থ জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। জেলা বিএনপির সভাপতি মাসুদ অরুন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুর রহমান, ইলিয়াস হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক রোমানা আহাম্মেদ, পৌর সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাসসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন। এসময় বক্তারা অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবী জানান। তা না হলে ভবিষৎ এ আরো কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে হুসিয়ারী দেন তারা।
নোয়াখালী সংবাদদাতা : নোয়াখালীতে জেলা বিএনপি মানববন্ধন কর্মসূচি পালন  করেন।
সোমবার নোয়াখালী প্রেস ক্লাবের সামনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবদুর রহমান, সহসভাপতি এড কামরুল ইসলামের  নেতৃত্তে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ।
খাগড়াছড়ি সংবাদদাতা : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত না করে ঘরে না ফেরার  হুমকি দিয়েছে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি। দাবি আদায়ে প্রয়োজনে স্বেচ্ছায় কারাবরণসহ আরো কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা হবে বলে হুশিযারী করা হয়েছে।
কেন্দ্রীয় ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী সোমবার খাগড়াছড়িতে জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের আয়োজিত বিশাল মানববন্ধন থেকে এ হুমকি দেওয়া হয়।
সোমবার সকাল ১১টায় আদালত সড়কে আয়োজিত মানববন্ধনের বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছাড়ি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবু ইউসুফ চৌধুরী ও জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম সবুজ। মানববন্ধনে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ক্ষেত্র মোহন রোয়াজা, কংচারী মারমা, অনিমেষ দেওয়ান নন্দিত, মংসুথোয়াই চৌধুরী, মোসলেম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক খনি রঞ্জন ত্রিপুরা, জেলা কৃষক দলের সভাপতি আব্দুল গফুর তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক নীলপদ চাকমা ও মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা কোহেলি দেওয়ানসহ বিপুল সংখ্যক বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী অংশ নেয়।
সাদুল্যাপুর (গাইবান্ধা) সংবাদদাতা : সাদুল্যাপুর উপজেলার শহরে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। সোমবার সকালে বনগ্রাম ইউনিয়ন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
গাইবান্ধা-মাদারগঞ্জ সড়কের সাদুল্যাপুর চৌ-মাথা মোড়ে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য দেন-সাদুল্যাপুর উপজেলা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি শফিউল ইসলাম স্বপন, ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি জামিউল হাসান জামি, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম সরকার, জেলা শ্রমিক দলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াকুবুল আজাদ, উপজেলা শ্রমিক দলের আহবায়ক মাসুদুর রহমান, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান, উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক রেজোয়ান হোসেন সুজন, ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি শহিদুল ইসলাম ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান সুইট বকসী প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ