শুক্রবার ২৯ মে ২০২০
Online Edition

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপির ২১ নেতা-কর্মী গ্রেফতার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের ২১ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শনিবার সকাল থেকে গতকাল রোববার সকাল পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সদর উপজেলার আল আমিন-(২৮), মোঃ নাজুমল মিয়া-(২০), মোঃ হেলাল চৌধুরী-(৪৫), আশুগঞ্জ উপজেলার  দেলোয়ার-(২০), সজিব মিয়া-(৩৪), রুবেল-(২৭), জামির হোসেন-(৩২), কাসেম মিয়া-(৩৫), মোঃ রুবেল মিয়া-(২৬), নবীনগর উপজেলার ফরিদ আহম্মদ ভূইয়া-(২৮), মুছা মিয়া-(৪৫), মোঃ ইব্রাহিম- (৫০), মোঃ বাছির মিয়া-(২০), মোঃ সুমন-(২৬), মোঃ রানা মিয়া-(৩৫), কবির মিয়া-(৩৫), মোঃ আইয়ূব মিয়া-(৪৫), আমজাদ হোসেন-(৩৮), শামীম পারভেজ-(৪৮), ফাজিল মিয়া-(৬০) এবং হক সাব-(২৮)।
এ ব্যাপারে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ডিআইওয়ান) মোঃ ইমতিয়াজ আহমেদ পিপিএম বলেন, গ্রেফতারকৃতরা সবাই বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী। তারা সবাই গ্রেফতারি পরোয়ানার আসামী। গতকাল রোববার সকালে তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আবদুল কুদ্দুস মাখনের স্মরণসভা অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কৃতি সন্তান, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সাবেক সদস্য, ডাকসুর সাবেক জি.এস এবং সাবেক সংসদ সদস্য জাতীয় বীর আব্দুল কুদ্দুস মাখনের ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্মরণ সভা করেছে আওয়ামী লীগ।
গত শনিবার সন্ধ্যায় পৌর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে স্থানীয় সুর স¤্রাট দি আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গনে  অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার।
পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুসলিম মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিন, মুজিবুর রহমান বাবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, গোলাম মহিউদ্দিন খান খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহআলম সরকার, সদর উপজেলা  আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম।
স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আল-মামুন সরকার বলেন, জাতীয় বীর আবদুল কুদ্দুস মাখন ছিলেন প্রকৃত অর্থেই একজন গণমানুষের নেতা। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষের ব্যাপারে তিনি ছিলেন ভীষণ দরদী।  তার অকাল মৃত্যু আমাদের অভিভাবক শূন্য করে ফেলে। জাতি-রাষ্ট্র ও সমাজের কল্যাণে তিনি যে অপরিসীম অবদান রেখেছেন তা অনুসরণীয়। মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতিপর্ব, মুক্তিযুদ্ধ সংগঠনে, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ের তার অবদানই তাকে জাতীয় নেতার মর্যাদা দিয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ