শনিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২০
Online Edition

টি-টোয়েন্টি সিরিজেও নেই সাকিব

স্পোর্টস রিপোর্টার : শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে  ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে আঘাত পাওয়ার ধকল এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেননি সাকিব আল হাসান।  ফলে  ১৫ ফেব্রুয়ারি প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলা হচ্ছে না সাকিবের। অথচ একদিন আগেই সাকিবকে দলে রেখে টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা করে ক্রিকেট বোর্ড। গতকাল সাকিব নিজেই জানালেন চোট সেরে না উঠায় তার খেলার সম্ভাবনা নেই। বিসিবির প্রচিকিৎসক দেবাশিস চৌধুরী ও প্রধান নির্বাচক নান্নুর কথায়ও মিলেছে এমন ইঙ্গিত।  প্রধান নির্বাচক নান্নুর বক্তব্য অনুসারে  প্রথম ম্যাচ মিস করবেন সাকিব। তবে পরের ম্যাচে হয়তো তার সার্ভিস পেতেও পারেন। নান্নু জানান, আমরা সাকিবের বর্তমান অবস্থা জানার জন্য অফিসিয়ালি ডাক্তার দেবাশিস ও ফিজিওকে জানাতে বলেছি। তার জানানোর পর সাকিবের অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারবো। তবে এখনি বলতে পারি ১৫ তারিখের ম্যাচ সাকিবের পক্ষে খেলা সম্ভব না। আমরা ১৮ তারিখের ম্যাচে তাকে আশা করছি। আমরাও আগেই ধরে নিয়েছিলাম প্রথম ম্যাচ সাকিব খেলতে পারবে না। প্রধান নির্বাচক সাকিবকে দ্বিতীয় ম্যাচে আশা করলেও বিসিবি চিকিৎসক ডাক্তার দেবাশিস নিশ্চিত করে জানাতে পারেননি সাকিব আদৌ এই সিরিজ খেলতে পারবেন কি না। গতকাল সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ডাক্তার দেবাশিস জানান, এখন বলার মত কোন অবস্থা  নেই। গ্যারান্টি দিয়ে বলা যাবে না সাকিব কত দিনের মধ্যে ফিট হবে। তাই আমরা বলতে পারবো না সাকিব এই সিরিজে মাঠে ফিরতে পারবে না। আবার মাঠে ফিরতে পারবে এটাও বলতে পারবো না। গতকাল (শনিবার) আমরা তার হাতের ব্যান্ডেজ খুলে দেখেছি এখনো কিছুটা ব্যাথা আছে। মনে রাখতে হবে তার ক্ষত স্থানে দশটা সেলাই পড়েছে। তা নিয়ে হয়তো দুই-তিন দিন পর ব্যাটিং করতে পারবে। কিন্তু সাকিবের কাজ তো আর শুধু ব্যাটিং করা নয়, তাকে বোলিং-ফিল্ডিং দুইটাই করতে হবে। ফিল্ডিংয়ের সময় ১০০ কিমির কোন শট বা ক্যাচ ধরতে হতে পারে। কিন্তু বর্তমান অবস্থায় সাকিব তা করতে পারবে না। সেটা কত দিনে পারবে তা এই মুহূর্তে বলা কঠিন, দিনক্ষণের হিসেবে নিশ্চিত কওে বোলার উপায় নেই ঠিক কবে সাকিব সুস্থ হবে। আজকে থেকে (গতকাল ) সাকিবের পুর্নবাসন শুরু হয়েছে। বোর্ড কোন ঝুঁকি নিতে চায় না। আঙ্গুলের উপর শুকিয়ে গেলে ভেতরের অংশটা তেমন শুকায়নি। সাকিবকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ৪/৫ দিন পর বুঝা যাবে আসলে কি অবস্থা। উল্লেখ্য, ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ফিলডিং করার সময় আঙুলে চোট পেয়ে মাঠের বাইরে চলে যান সাকিব। পরে ওই ম্যাচে আর খেলা হয়নি তার। এরপর শ্রীলংকার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজেও মাঠের বাইরে ছিলেন সাকিব। দলে না থাকলে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মিরপুরে নেতৃত্ব  দেওয়া হবে না সাকিবের। তবে সুস্থ হয়ে উঠলে সিলেটে  দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে সাকিব ফিরতে পারেন। সাকিব না থাকাতে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দিবেন তামিম ইকবাল।  ইনজুরিতে থাকা সাকিবকে প্রথম ম্যাচে মাঠে নামানোর ঝুঁকি নিতে চায় না বোর্ড। ফলে  প্রথম ম্যাচের একাদশের বাইরে থাকতে পারেন তিনি। সেক্ষেত্রে তামিম ইকবালের কাঁধেই দায়িত্ব বর্তাবে মাঠ সামলানোর। আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি মিরপুরে সফরকারী শ্রীলংকার বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মাঠে নামবে টাইগাররা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ