বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ফাইনালে আরামবাগের প্রতিপক্ষ চট্টগ্রাম আবাহনী

স্পোর্টস রিপোর্টার : স্বাধীনতা কাপ ফুটবলের ফাইনালে আগামী শনিবার আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের মুখোমুখি হবে গত আসরের চ্যাম্পিয়ন চট্টগ্রাম আবাহনী। আগেরদিন শেখ জামালকে বিদায় দিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছিলো আরামবাগ। গতকাল মঙ্গলবার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে চট্টগ্রাম আবাহনী ১-০ গোলে রহমতগঞ্জকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে। বিজয়ী দলের পক্ষে পেনাল্টিতে একমাত্র গোলটি করেন শাখাওয়াত হোসেন রনি। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি ছিলো প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ। রনি-রানার  নৈপুণ্যেই মূলত রহমতগঞ্জ মুসলিম সোসাইটিকে হারিয়ে স্বাধীনতা কাপের ফাইনালে উঠেছে চট্টগ্রাম আবাহনী। একাদশ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার প্রথম সুযোগটি পায় রহমতগঞ্জ। গোলরক্ষক রানার গ্লাভস থেকে বল বেরিয়ে যাওয়ার পর পেয়ে যান মোহাম্মদ হেলাল। কিন্তু এই ফরোয়ার্ড লক্ষ্যভ্রষ্ট শটে দলকে হতাশ করেন। পরের মিনিটেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পায় চট্টগ্রাম আবাহনী। ডান দিক থেকে মিডফিল্ডার মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর ক্রসে ফরোয়ার্ড জাফর ইকবালের ছোট ডি বক্সের ভেতর থেকে নেওয়া হেড লক্ষ্যে থাকেনি। ৪০ মিনিটে চট্টগ্রাম আবাহনীর পাওয়া পেনাল্টি নিয়ে উত্তেজনা তৈরি হয়। ডান দিক থেকে সুশান্ত ত্রিপুরার ক্রস গোলাম মোস্তফা তুয়ানের গ্লাভস থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর গোললাইন থেকে বুক দিয়ে ফেরাতে গিয়ে মোজাম্মেল হোসেন নিরার হাতে লাগলে রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজান।

রেফারি সিদ্ধান্তে অসন্তোষ জানিয়ে ডাগআউট ছেড়ে নিয়ম ভেঙ্গে মাঠে ছুটে গিয়ে প্রতিবাদ জানাতে থাকেন রহমতগঞ্জ কোচ কামাল বাবু। এক পর্যায়ে দলের খেলোয়াড়দের মাঠ ছেড়ে আসতেও বলেন তিনি। শুরুতে কামালকে মাঠ ছাড়ার নির্দেশ দিলেও পরে সহকারী রেফারির সঙ্গে আলোচনা করে ডাগআউটে থাকার অনুমতি দেন রেফারি সুজিত ব্যানার্জি চন্দন। ১০ মিনিট খেলা বন্ধ থাকার পর যোগ করা সময়ে পেনাল্টিতে শিরোপাধারীদের এগিয়ে নেন রনি ১-০। স্বাধীনতা কাপে এটি এই ফরোয়ার্ডের দ্বিতীয় গোল। ৬২ মিনিটে সাদ্দাম হোসেন অ্যানির বাড়ানো ক্রসে মিডফিল্ডার নাইমুর রহমান শাহেদের হেড ফিরিয়ে চট্টগ্রাম আবাহনীর ত্রাতা গোলরক্ষক রানা। নয় মিনিটে পর মিডফিল্ডার মোহাম্মদ ইলিয়াসের স্পট কিক ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে ফিরিয়ে রহমতগঞ্জকে আবারও হতাশ করেন রানা। ডি বক্সের ভেতর সোহেল রানা শামীম রেজাকে ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। ৮৪ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণের সুযোগ নষ্ট করেন রনি। বামপ্রান্ত দিয়ে জাফরের বাড়ানো ক্রসে এই ফরোয়ার্ডের সাইড ভলি কর্নারের বিনিময়ে ফেরান গোলরক্ষক। ৮৮ মিনিটে আব্দুল্লাহর শট ক্রসবারে ওপর দিয়ে গেলে ব্যবধান বাড়িয়ে নিতে পারেনি চট্টগ্রাম আবাহনী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ