বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

রূপগঞ্জে জমি জবরদখলের চেষ্টা জালিয়াত চক্রের হুমকি

 

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নিরীহ’র জমি জোরপুর্বক জবরদখলের চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে একটি জালিয়াত চক্রের বিরুদ্ধে। বাঁধা দেয়ায় ওই জমির মালিককে গুলি করে মাথার খুলি উড়িয়ে দিবে বলে হুমকি দেয়া হয়। 

হুমকি দেয়ার পর থেকেই তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। ঘটনাটি ঘটেছে  গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার গোয়ালপাড়া এলাকায়।

ভুক্তভোগী জমির মালিক বুশরা ইসলাম জানান, তিনি রাজধানীর গুলশান এলাকার মৃত ওয়াজেদুল ইসলামের ছেলে। 

রূপগঞ্জ উপজেলার গোয়ালপাড়া এলাকায় অবস্থিত কেয়ারিয়া মৌজার এসএ ১৯ এবং আরএস ২২নং দাগে রেকর্ডীয় মালিক বিমলা বেওয়ার ছেলে অভয় চরন এবং তার দুই ছেলে অনিল চন্দ্র ও বিপদ ভঞ্জন দাসের কাছ থেকে ১০৫ শতাংশ জমি ক্রয় করেন বুশরা ইসলাম। তিনি তার ক্রয়কৃত জমি ভোগদখল করে আসছিলেন। 

কিন্তু উক্ত জমি আতœসাৎ করতে পার্শবর্তী বাগবের এলাকার নজরুল ইসলাম , জাইদুল ইসলাম, তাছলিমা, গোয়ালপাড়া এলাকার জালিয়াত চক্রের হোতা শফিকুল ইসলাম ওরফে ইয়াবা ডিলার শফি, তার মা রাবেয়া বেগমসহ একটি জালিয়াত চক্র বিমলা বেওয়ার ভুয়া ছেলে বিমল চন্দ্র দাস সাজিয়ে বেশ কয়েকটি জাল দলিল করেন। 

জাল দলিল করার  খবর পেয়ে ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ ২য় সাবজজ আদালতে ৭৪৬নং দেওয়ানী মামলা রুজু করেন জমির মালিক বুশরা ইসলাম। 

মামলা দায়েরের এক মাস পর আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন। মঙ্গলবার দুপুরে জালিয়াত চক্রটি আদালতের আদেশ অমান্য করে জোরপূর্বক দেশীয় অস্ত্র সজ্জে সজ্জিত হয়ে  ওই জমিতে পাঁকা দেয়াল নির্মান কাজ শুরু করে। 

এতে বুশরা ইসলামসহ সহযোগী আরমান মোল্লা বাঁধা দিলে গুলি করে মাথার খুলি উড়িয়ে দিবে বলে হুমকী দেয়। 

এ ঘটনায় আরমান মোল্লা বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

 এ বিষয়ে রূপগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হোসেন ভুঁইয়া রানু বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের দেয়া ওয়ারিশ সনদ জাল করে একটি চক্র জমি আতœসাৎ করার চেষ্টা করছে। 

মুলত বিমলা বেওয়ার ছেলে বিমল চন্দ্র দাস আছে বলে আমার জানা নেই। 

এদিকে অভিযুক্ত শফিকুল ইসলাম বলেন, দলিল যেমনেই করেছি তাতে কি, এই জমির আসল মালিক আমিই। 

তাই নিজের জমিতেই প্রাচীর নির্মান করছি।  

 এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে একটি জালিয়াত চক্র জমি দখলের চেষ্টা করছে এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ সদস্য পাঠানো হয়েছে। কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। দেশীয় অস্ত্র উদ্ধারের জন্য পুলিশ আইনি পদক্ষেপ নিবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ