বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

বিতর্কিত রিপাবলিকান মেমো নিয়ে এফবিআই- হোয়াইট হাউস দ্বন্দ্ব

 

 

০১ ফেব্রুয়ারি, বিবিসি : মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) ট্রাম্পবিরোধী পক্ষপাতমূলক কর্মকা-ের প্রমাণ স্বরূপ কিছু গোপন নথি প্রকাশের ঘোষণা দিয়েছে রিপাবলিকান পার্টি। বুধবার সকালে ট্রাম্পের এক উপদেষ্টা ফক্স নিউজ রেডিওকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এফবিআইয়ের আপত্তি সত্ত্বেও নথিগুলো দ্রুততম সময়ের মধ্যে প্রকাশ করা হবে বলে ঘোষণা দেন। কয়েক ঘণ্টা পর বিরল এক বিবৃতিতে এফবিআইএ নথিগুলোকে ‘বিতর্কিত’ অ্যাখ্যা দিয়ে রিপাবলিকানদের এমন পদক্ষেপে ‘গভীর উদ্বেগ’জানায়। 

“নথির যথার্থতাকে প্রভাবিত করে তথ্যের এমন উপাদানগত ভুলের ব্যাপারে আমরা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি,” বিবৃতিতে বলে তদন্ত সংস্থাটি।

 ডেমোক্রেটরাও এ পদক্ষেপের সমালোচনা করছে। তারা বলছে, এ ধরণের নথি প্রকাশ মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ এবং রিপাবলিকান শিবিরের সঙ্গে মস্কোর যোগাযোগ নিয়ে এফবিআইএ-র তদন্তকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে।

 “এটা খুব দ্রুতই প্রকাশ করা হবে বলে মনে হচ্ছে, এরপর পুরো পৃথিবী তা দেখতে পাবে,” ফক্স নিউজ রেডিওকে বলেন হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ জন কেলি। এর প্রতিক্রিয়ায় মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার বিবৃতিতে বলা হয়, সোমবার কংগ্রেসের হাউজ ইন্টিলিজেন্স কমিটি নথিগুলো প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে এফবিআই সেগুলো খতিয়ে দেখার ‘খুব সামান্য সুযোগ’ পেয়েছিল। বৃহস্পতিবারই নথিগুলো প্রকাশ হতে পারে বলে ইঙ্গিত হোয়াইট হাউসের।

হাউজ ইন্টিলিজেন্স কমিটির চেয়ারম্যান ডেভিন নানসের কর্মচারীদের সংকলিত চার পৃষ্ঠার ওই নথিতে মার্কিন বিচার বিভাগের বিরুদ্ধে নজরদারি কর্মসূচির অপব্যবহারের দাবি করা হয়েছে। ফরেন ইন্টিলিজেন্স সারভেইলেন্স অ্যাক্টের অধীনে ট্রাম্প শিবিরের এক সদস্যের বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে ওই নজরদারি চালানো হয়েছিল বলে অভিযোগ রিপাবলিকানদের। যে আইনপ্রণেতারা ওই নথিগুলো পর্যালোচনা করেছেন তাদের ভাষ্য অনুযায়ী, মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ বিষয়ে অপ্রমাণিত এক দলিলের সাক্ষ্যে এফবিআই ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের ওই উপদেষ্টার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট জারি করেছিল। হিলারি শিবিরের আংশিক অর্থায়নে যুক্তরাজ্যের সাবেক গোয়েন্দা কর্মকর্তা ক্রিস্টোফার স্টিল ট্রাম্পবিরোধী ওই দলিল সাজিয়েছিলেন। রিপাবলিকান সংখ্যাগরিষ্ঠ হাউজ ইন্টিলিজেন্স কমিটির সোমবারের ভোটে নথি প্রকাশের পক্ষে সিদ্ধান্ত হলেও সেগুলো প্রকাশ করা হবে কিনা সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের হাতে পুরো সপ্তাহ আছে বলে বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

যদিও মঙ্গলবার রাতে স্টেট অব দ্য ইউনিয়নের ভাষণের পর এক রিপাবলিকান আইনপ্রণেতার সঙ্গে কথোপকথনের সময় ট্রাম্পকে নথিগুলো প্রকাশের বিষয়ে ‘শতভাগ’ নিশ্চয়তা দিতে শোনা গেছে। যদিও বুধবার হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সারাহ স্যান্ডার্স সিএনএনকে ‘নথিগুলো প্রকাশ না হওয়ার সম্ভাবনা সবসময়ই থাকে’ বলে মন্তব্য করেছিলেন। এফবিআইয়ের আগে মার্কিন বিচার বিভাগও নথি প্রকাশের উদ্যোগে উদ্বেগ জানিয়েছিল; তারা রিপাবলিকানদের পদক্ষেপকে ‘বেপরোয়া’ হিসেবেও অ্যাখ্যা দিয়েছিল।

নথি প্রকাশে বাধা দিয়েও ব্যর্থ হওয়া ডেমোক্রেট আইনপ্রণেতারা বলছেন, অতি গোপনীয় এ নথি প্রকাশের মাধ্যমে নানস জাতীয় নিরাপত্তাকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারেন। প্রকাশিত নথি মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ ও বিচারকাজে ট্রাম্প প্রশাসনের সদস্যদের সম্ভাব্য বিঘ্ন বিষয়ে স্পেশাল কাউন্সেল মুলারের তদন্তকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে পারে বলেও শঙ্কা তাদের। যদিও ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মকর্তাদের ভাষ্য, এফবিআইয়ের পক্ষপাতমূলক কর্মকা-ের শিকার হওয়ার বিষয়ে ট্রাম্পের দাবির সত্যতা প্রমাণ করবে এ নথি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ