সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

 দেশের ১৬ কোটি মানুষকে পেনশনের আওতায় আনা হবে ---অর্থমন্ত্রী

 

স্টাফ রিপোর্টার: দেশের সব মানুষকে পেনশনের আওতায় আনার কথা জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। পেনশনের অর্থ উত্তোলন নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। স্বয়ংক্রিযভাবে পেনশনের টাকা ব্যক্তির একাউন্টে জমা হবে। তিনি বলেন, আসছে বাজেটে ১৬ কোটি মানুষকে পেনশনের আওতায় আনার একটি রূপরেখা প্রণয়ন করা হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে আয়োজিত ডিজিটাল সিস্টেমে পেনশন স্থানান্তর উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী এ কথা বলেন। অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেনশনের অর্থ বিতরণের অনলাইন কার্যক্রম কর্মসূচির উদ্বোধন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এসময় প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম। ছিলেন অর্থ সচিব মুসলিম চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, জাতীয় পেনশন স্কেলের রূপরেখা আগামী বাজেটে দেওয়া হবে। দেশের সব মানুষ যাতে পেনশনের অন্তর্ভুক্ত হয়, সে ব্যবস্থা করা হচ্ছে। শুধু সরকারি চাকরিজীবীরা নয়, সবার জন্য পেনশনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

মুহিত বলেন, দেশে এখন ৬ লাখ ৯৭ হাজার ২১২ জন পেনশন সুবিধা ভোগ করছেন। তারা সবাই সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী। এখন থেকে পেনশনের টাকা সংশ্লিষ্টদের একাউন্টে চলে যাবে, সে তথ্য মোবাইল ফোনে চলে যাবে এসএমএসের মাধ্যমে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, এখন থেকে আর কাউকে পেনশনের হিসাব করা, পেনশনের অর্থ উত্তোলন নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। ইট ইজ ইন কিপিং উইথ দ্য ফিলোসফি অব দ্য স্টেট, কারণ এখন ফিলোসফি হল যত সিটিজেনস আছে সবাইকে একটা সুযোগ করে দিতে হবে। ইট ইজ ইউনিভার্সেল পেনশন, যেটা আমরা মোর অর লেস কমিটেড, ওভার পিরিয়ড অব টাইম- হয়তো সেটা হবে।

তিনি বলেন, আমি তো আগেও বলেছি আমরা চিন্তা করছি, পেনশন সিস্টেম ফর দ্য হোল ন্যাশন। আমি সেটার রূপরেখাটা এনাউন্স করব। এটা ইন্ট্রোডিউস হবে না ইমিডিয়েটলি বাট উই স্যাল এনাউন্স দ্য আউটলাইন অব দ্য ন্যাশনাল পেনশন সিস্টেম। এটা নিয়ে আমাদের এখানে কাজ হচ্ছে। পেনশন সিস্টেমে দেশের প্রত্যেক নাগরিক বেনিফিটেড হবে।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রের জন্ম হয়েছিল আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য। কিন্তু এখন রাষ্ট্র জনকল্যাণমূলক। আজ আমরা যা উদ্বোধন করেছি এটা একটা যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এটা তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে যাবে। 

অর্থ সচিব মুসলিম চৌধুরি বলেন, অর্থমন্ত্রী এ বিষয়ে রূপরেখা প্রণয়নের পর এই পেনশন স্কিম পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে। রূপরেখা প্রণয়নের কাজ চলছে। এর ফল পাবে সাধারণ মানুষ। আগামী বাজেট তা দৃশ্যমান হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ