শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

কলারোয়া জামায়াতের আমীর ওসমান গণি জেলগেটে ফের প্রেফতার

 

সাতক্ষীরা সংবাদদাতা : কলারোয়া উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা ওসমান গণিকে জেল গেট থেকে আটক করা হয়েছে । গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সাতক্ষীরা কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে বের হলে সাদাপোষাকে ডিবি পুলিশ তাকে আটক করে বলে মাওলানা ওসমানের স্ত্রী শিরিনা বেগম জানান। তবে সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশ তা অস্বীকার করেছে। গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর কলারোয়া কামারখালি দাখিল মাদরাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। তিনি মানিক নগর গ্রামের মৃত নছিম উদ্দীন মোড়লের ছেলে ও কামারখালি দাখিল মাদরাসার সুপার। প্রতিষ্ঠানে কর্মরত অবস্থায় শরশকাটি পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ এস আই তারেক সহ কয়েকজন পুলিশ তাকে তার মাদরাসা থেকে আটক করে । মাওলানা ওসমান গণির স্ত্রী শিরিনা সুলতানা জানান, তার স্বামীর বিরুদ্ধে কোন ওয়ারেন্ট ছিলনা। রাজনৈতিকভাবে তার বিরুদ্ধে যে সব হয়রানিমূলক মামলা দেয়া হয়েছে সে সব মামলায় তিনি জামিনে ছিলেন। এর পরও নতুন করে আটকের পর তার বিরুদ্ধে চারটি মামলা দেয় পুলিশ।

ওসমান গণির স্ত্রী শিরিনা সুলতানা জানান সংবাদ মাধ্যমকে জানান,তা স্বামী উচ্ছ আদালত থেকে জামিন নিয়ে সাতক্ষীরা কারাগার থেকে বের হলে পুলিশ তার স্বামীকেআটক করে। পরে কলারোয়া থানায় যেয়ে আমার স্বামীর খোজ পাই। তিনি আশঙ্কা করেছে পুলিশ তার স্বামীর বিরুদ্ধে নতুন করে ঘটনা মন্থঞ্চ করতে পারে। তিনি তার স্বামীর মুক্তির দাবী জানিয়েছে। এবিষয়ে কলারোয়া থানার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

 এছাড়া জেলাব্যাপী পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৩৪ জন বিএনপি-জামায়াত নেতা কর্মীসহ ৫৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।বুধবার সকাল থেকে বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত জেলার আটটি থানার বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতদের মধ্যে, সাতক্ষীরা সদর থানা থেকে ১৫ জন, কলারোয়া থানা ১২ জন, তালা থানা ২ জন, কালিগঞ্জ থানা ৫ জন, শ্যামনগর থানা ৬ জন, আশাশুনি থানা ৭ জন, দেবহাটা থানা ৪ জন পাটকেলঘাটা থানা থেকে ৪ জনকে আটক করেছে। পুলিশের দাবী পুলিশের সন্ত্রাস, নাশকতা ও মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযানে তাদের আটক করা হয়।

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার পরিদর্শক মিজানুর রহমান তাদের আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে নাশকতা ও মাদকসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ