শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হলে রুখে দাঁড়ানোর ঘোষণা বিএনপির

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির প্রতি নিরাপত্তা বাহিনীর অত্যাচার আর বেগম খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির হতে দেখে জনগণের মধ্যে ক্ষোভের সাইক্লোন বয়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন রুহুল কবির রিজভী। গতকাল বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনের দলীয় কার্যালায়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এই কথা বলেন। এছাড়া ৩ তারিখে দলের নির্বাহী কমিটির সভা হোটেল লা মেরিডিয়ানে হবে বলেও জানান তিনি। মঙ্গলবার হাইকোর্ট এলাকায় পুলিশের প্রিজন ভ্যানে বিএনপি কর্মীদের হামলার পর পুলিশের অভিযানে দলটির নেতা-কর্মীদের গ্রেফতারের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে সাংবাদিক সম্মেলন ডাকে বিএনপি।

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী প্রচার শুরুর সমালোচনা করে রিজভী বলেন, রাষ্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধা অন্যায়ভাবে ব্যবহার করে প্রধানমন্ত্রী ভোট চাইবেন আর দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী আদালতে হাজিরা দিতে থাকবেন, এই বৈপরিত্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে জনগণের মনে ক্ষোভের সাইক্লোন বয়ে যাচ্ছে। আগামী ৮ ফেব্রুয়ারির রায়ে খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হলে রুখে দাঁড়ানোরও হুঁশিয়ারি দেন রিজভী। বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জাল নথির সাজানো মামলায় বিচারের নামে প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার বিচার জাতীয়তাবাদী শক্তি ও জনগণ সকল নিপীড়ন-নির্যাতন সহ্য করে প্রতিবাদে-প্রতিরোধে বাধার বিন্ধ্যাচলের ন্যায় দাঁড়াবে।

তিনি বলেন, সরকারের পেটোয়া বাহিনীদের নিক্ষিপ্ত গুলী বুকে বরণ করে নিয়েও নীতি, আদর্শ, গণতন্ত্র ও জাতীয়তাবাদী চেতনায় বলিয়ান বিএনপি নেতাকর্মীরা রাজপথে থেকে তাদের নেত্রীর বিরুদ্ধে কোন নেতিবাচক সিদ্ধান্ত মেনে নেবে না।

মঙ্গলবার প্রিজন ভ্যানে হামলার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের নিন্দা জানিয়ে রিজভী বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেন প্রতিযোগিতায় নেমেছে কে কতটা বিএনপি নেতাকর্মীকে নির্যাতন করতে পারে। যেন প্রধানমন্ত্রীকে খুশি করতেই তারা নির্দয়তার সীমা অতিক্রম করছে। 

বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিঃসন্দেহে এখন আওয়ামী লীগের লাঠিয়াল বাহিনী। আওয়ামী চেতনায় লালিত এই বাহিনীগুলো যেন বিরোধী দলকে মাটির সাথে মিশিয়ে দেয়ার জন্যই সরকার প্রধানের কাছে শপথ করেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিবেকহীনতা এখন জাতি ও জনগণের জন্য সবচেয়ে বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলেও মনে করেন রিজভী।

সিলেটে প্রধানমন্ত্রীর জনসভাকে নির্বাচনী আইনের লংঘন এমন অভিযোগ করে রিজভী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভোট চাওয়ার বক্তৃতায় তিনি নিজে প্রমাণ করছেন যে তার নেতৃত্বাধীন সরকার কতটা বিবেকহীন, স্বার্থপর ও দায়িত্বজ্ঞানহীন। বেগম খালেদা জিয়াকে বারবার আদালতে হাজিরা দিতে বাধ্য করতে যে নিষ্ঠুর হয়রানির দৃষ্টান্ত স্থাপন করা হচ্ছে তা কারো অগোচরে নেই।

এদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভা ৩ ফেব্রুয়ারি বিমানবন্দর সড়কের হোটেল লা মেরিডিয়ানে হবে জানিয়ে রিজভী বলেন, ওই দিন সকাল ১০টা থেকে এই সভা শুরু হবে। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এতে সভাপতিত্ব করবেন । 

রিজভী জানান, ঢাকায় সভা করার জন্য আমরা কোনো মিলনায়তন পাইনি। বাধ্য হয়ে আমরা লা মেরিডিয়ানে সভা করছি। এ সময় রিজভী অভিযোগ করেন, কয়েক দিন ধরে পুলিশ বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এখন আওয়ামী লীগের লাঠিয়ালে পরিণত হয়েছে। এই বাহিনীগুলো যেন বিরোধী দলকে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দেয়ার জন্যই সরকার প্রধানের কাছে শপথ করেছে। তারা যেন প্রতিযোগিতায় নেমে পড়েছে বিএনপির নেতা-কর্মীদের কে কতটা নির্যাতন করতে পারে। আর এর ওপরই যেন নির্ভর করে তাদের পুরস্কার-পদোন্নতি।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, গত মঙ্গলবার বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামের ছোট ছেলে অনিন্দ্য ইসলাম অমিতকে গ্রেফতারের পর বুধবার তাঁর বড় ছেলে সুনিন্দ্য ইসলাম সুমিতকে  গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি ছোট ভাইকে দেখতে গিয়েছিলেন এবং খাবার দিতে গিয়েছিলেন। গতকাল ২০ দলীয় জোটের শরিক ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) সহকারী সেক্রেটারি শওকত সরদারকে  গ্রেফতার করা হয়েছে। বিএনপির তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, নির্বাহী কমিটির সদস্য হাসান মামুন, যুবদল নেতা মুজিবুর রহমান, আবদুস সালাম ও সেলিমকে  গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

 প্রসঙ্গত, জাতীয় নির্বাহী কমিটি গঠনের দুই বছর পর এই সভায় জাতীয় নির্বাহী কমিটির ৫০২ সদস্য ছাড়াও বিভিন্ন জেলা শাখা এবং সহযোগী সংগঠনগুলোর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে আলোচনা করবেন খালেদা জিয়া।

গতকাল প্রথমে দলের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আতাউর রহমান ঢালী, ডা. আবদুল কুদ্দুস দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিবের কাছ থেকে পরিচয়পত্র নেন। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত আমন্ত্রিত সদস্যদের পরিচয়পত্র দেয়া হবে। কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরা ছাড়াও সারাদেশে শাখাগুলোর সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ও সহযোগী সংগঠনগুলোর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা পদাধিকার বলে নির্বাহী কমিটির এ  বৈঠকে যোগ দেয়ার কথা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ