মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০
Online Edition

কেশবপুর ২ ভাটা মালিকের ৬ মাসের জেল ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

কেশবপুর (যশোর) : অবৈধভাবে গড়ে উঠা রোমান ব্রিকসে ইট পোড়ানোর অভিযোগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোমবার ভাটা মালিকের জেল জরিমানা ও ভাটা বন্ধ করে দেন

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা: কেশবপুরে প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে ইট পোড়ানোর অভিযোগে রোমান ব্রিকসের মালিক সিদ্দিকুর রহমান ও জামান ব্রিকসের সত্ত্বাধিকারী মমতাজ বেগমকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৬ মাস করে জেল ও ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানূর রহমান ওই দুই ভাটা মালিককে জেল ও জরিমানা করেন।
সরকারের নীতিমালা উপেক্ষা করে কেশবপুরে যত্রতত্র গড়ে উঠেছে ১৫টি ইটভাটা। এরমধ্যে মাত্র ৩টি ভাটার বৈধ কাগজপত্র রয়েছে। চলতি বছর ভাটা মালিকরা অবৈধ ভাটায় ইট উৎপাদনসহ নতুন নতুন ভাটা স্থাপনার কাজ বহাল তবিয়াতে চালিয়ে যেতে থাকলে গত ২ ডিসেম্বর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সকল ইটভাটা মালিকদের কাগজপত্র নিয়ে তাঁর দপ্তরে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন। এ সময় ১৫টি ভাটার মধ্যে মাত্র ৩ জন মালিক তাদের বৈধ কাগজপত্র জমা দেন। অন্য ভাটা মালিকরা এক মাসের সময় নেন। এ সময়ের মধ্যে শুধুমাত্র গাজী ব্রিকস উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দপ্তরে সকল কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। গত ২ জানুয়ারী ১ মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও কোন ভাটা মালিক তাদের বৈধ কাগজপত্র উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দপ্তরে জমা দিতে ব্যর্থ হন।
এসব ভাটাগুলো হলো উপজেলার বায়সা কালিবাড়ি মোড়ের গোল্ড ব্রিকস, পৌর এলাকার বালিয়াডাঙ্গার খান ব্রিকস, ভোগতীনরেন্দ্রপুর এলাকার জামান ব্রিকস, বেগমপুর গ্রামের রিপন ব্রিকস, সাতবাড়িয়া বাজারের ১০০ গজ দূরে ঘন বসতিপূর্ণ এলাকার সুপার ব্রিকস, আগরহাটি গ্রামে প্রাইম ব্রিকস, সন্ন্যাসগাছা গ্রামের বিবি ব্রিকস-১ ও বিবি ব্রিকস-২ নামের অবৈধ ইটভাটা প্রশাসনের মৌখিক অনুমতি নিয়ে বছরের পর বছর ইট উৎপাদন ও বিক্রি করে চলেছেন।
এছাড়া রিপন ব্রিকসের মালিক বারুইহাটি মোড়ে রোমান ব্রিকস নামে, ভোগতীনরেন্দ্রপুর এলাকায় জামান ব্রিকস ও সাতবাড়িয়া বাজারের ঘন বসতিপূর্ণ এলাকার সুপার ব্রিকস নামের ৩টি ইটভাটা চলতি বছর নতুন করে ভাটা স্থাপনার কাজ চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এরমধ্যে ভাটা মালিক সিদ্দিকুর রহমান গত সোমবার সকালে বারুইহাটি মোড়ে রোমান ব্রিকসে ইট উৎপাদনের জন্যে ভাটায় আগুন দেন। সোমবার খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানূর রহমান ঘটনাস্থলে গিয়ে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে অবৈধভাবে ইট পোড়ানোর অভিযোগে ভাটা মালিক সিদ্দিকুর রহমানকে আটক করে ৬ মাসের জেলসহ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এদিকে, ভোগতী মোড়ে অবৈধভাবে স্থাপিত জামান ব্রিকসে প্রশাসনকে গোপন করে গত ১০ জানুয়ারী থেকে ইট পোড়ানো শুরু করে। একই দিন জামান ব্রিকসের স্বত্বাধিকারী মমতাজ বেগমকেও একই দন্ডে দন্ডিত করা হয়।   
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানূর রহমান বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বৈধ কাগজপত্র জমা না দিয়ে রোমান ব্রিকস ও জামান ব্রিকসের স্বত্বাধিকারী সিদ্দিকুর রহমান ও মমতাজ বেগম ইট পোড়ানোর অপরাধে তাদের প্রত্যেককেই ৬ মাস করে জেল ও ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ