বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বিকল দু’পায়ে কুড়িগ্রামের প্রতিবন্ধী মিঠুর শিক্ষক হওয়ার স্বপ্ন

প্রতিবন্ধী মিঠু সরকার সহপাঠীদের সাথে স্কুলের বারান্দায় -সংগ্রাম

মোস্তাফিজুর রহমান কুড়িগ্রাম থেকে : জন্ম থেকেই দু’পায়ের ওপর ভর করে দাঁড়াতে পারে না তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী মিঠু সরকার। সব শিশুদের মতো প্রতিদিন বিদ্যালয়ে আসে-যায়। তবে পায়ে হেঁটে নয়। হুইল চেয়ারে বসে। তবুও চোখে মুখে স্বপ্নের ঝিলিক। বড় হয়ে শিক্ষক হবে সে। সম্প্রতি কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর উপজেলার পান্ডুল ইউনিয়নের আপুয়ার খাতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা হয় শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশু মিঠু সরকারের সাথে।
বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণিতে ঢুকতেই সব শিশুদের সাথে সেও অভ্যর্থনা জানায়। কিন্তু দৃষ্টি আটকে যায় তার উপর। হাস্যজ্জ্বল মিঠুর যেন কোন আক্ষেপ নেই কারোর ওপর। কেমন আছো? জিজ্ঞাসা করতে সে জানান ভালো। সে বিদ্যালয় থেকে দেড় কিলোমিটার পথ হুইল চেয়ারে বসে নিজেই চালিয়ে প্রতিদিন স্কুলে আসে। স্যারও তাকে খুব আদর করে। বাবা আবু তৈয়ব ঢাকার একটা গার্মেন্টসে চাকরি করে, আর মা ময়না বেগম গৃহিনী। বিদ্যালয় সংলগ্ন আপুয়ার খাতা গ্রামে তার বাড়ি। সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড সদস্য জয়নাল আবেদীন জানান, ছেলেটি শিশুকাল থেকেই প্রতিবন্ধি ও বহু রোগে আক্রান্ত। চিকিৎসা করার সামর্থ্যও নেই শিশুটির পরিবারের। হুইল চেয়ারটিও পুরাতন হওয়ায় কষ্ট করে তাকে স্কুলে আসতে হয়। বড় ভাই মাসুদ রানা এইচএসসিতে পড়াশোনা করছে। আর ৫ বছরের বোন রিনি প্রি-প্রাইমারিতে পড়ছে। শারীরিক প্রতিবন্ধি মিঠু জানায়, সে বড় হয়ে শিক্ষক হবে। যেভাবে আজ স্যার তাকে শিক্ষা দিচ্ছে তেমনিভাবে সেও শিক্ষক হয়ে গ্রামের ছেলেমেয়েদের পড়ালেখা করাবে। তুমি কি চাও? প্রশ্ন করলে অকপটে বলে -সবার দোয়া চাই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ