বৃহস্পতিবার ০১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

চন্দনাইশে রেলওয়ের উচ্ছেদ অভিযান থমকে গেছে

চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা : চট্টগ্রামের চন্দনাইশে বাংলাদেশ রেলওয়ের উচ্ছেদ অভিযান থমকে গেছে। উচ্ছেদ অভিযানে ব্যবহৃত বুলডোজার নষ্ট হয়ে যাওয়ায় উচ্ছেদ অভিযান সফল হয়নি। বৃহস্পতিবার উপজেলার দোহাজারী রেলওয়ে ষ্টেশনে সকাল ১০টায় উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়। বাংলাদেশ রেলওয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ইশরাত রেজার নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়। দোহাজারী রেলওয়ে ষ্টেশনে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রভাবশালী শতাধিক অবৈধ দখলদার বাংলাদেশ রেলওয়ে জায়গা দখল করে বসতবাড়ী ও বাণিজ্যিক ভাবে দোকানপাট নিমার্ণ করেন। দীর্ঘদিন ধরে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ এইসব অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ হওয়ার জন্য বারংবার নোটিশ প্রদান করলেও রেলওয়ের অসাধু কর্মকর্তাদের যোগসাজসে ব্যবসায়ীরা উচ্ছেদ নোটিশকে বৃদ্ধাআঙ্গুলী প্রদর্শন করেন। সম্প্রতি চট্টগ্রাম-কক্সবাজার-গুমদুম রেললাইনের সম্প্রসারণ কাজ শুরু হলে রেলওয়ের নিজস্ব জায়গা অবমুক্ত করার জন্য কর্তৃপক্ষ পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। ফলে সর্বশেষ ডিসেম্বরের মাঝামাঝি অবৈধ দখলদারদের উঠে যাওয়ার জন্য ৪ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সময় নিধার্রণ করে নোটিশ প্রদান করেন। ফলে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অবৈধ দখলদাররা উচ্ছেদ না হওয়ায় উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে। উল্লেখ্য যে, প্রায় ৩ একরের অধিক জায়গা অবৈধ দখলদারদের দখলে আছে। যার বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় ৩০ কোটি টাকা। এই ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইশরাত রেজার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান বুলডোজার নষ্ট হওয়ায় উচ্ছেদ অভিযান সাময়িক ভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। বুলডোজার পেলে পূণরায় অভিযান চলবে। তবে এখন নিজস্ব উদ্যোগে অনেকেই বসতবাড়ী এবং দোকানপাটের মালামাল সরিয়ে নিয়ে সরকারী রেলওয়ের জায়গা মুক্ত করে দিচ্ছেন। এই সময় অন্যান্যোদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রেলওয়ের লাইন সম্প্রসারণ প্রকল্পের সহকারী পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম, ঠিকাদারী ফার্ম তমা গ্রুপের ম্যানেজার নুরুজ্জামান চৌধুরী, তমার সহকারী পরিচালক শাখাওয়াত হোসেন, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফরিদ উদ্দীন খন্দকার ও সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ