মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০
Online Edition

অবাধ নির্বাচনের জন্য যা করা দরকার বিএনপি তা-ই করবে ---গয়েশ্বর

 

স্টাফ রিপোর্টার: একটি অবাধ নির্বাচন আদায়ে যা করণীয় সেগুলোর সবকিছুই বিএনপি করবে বলে জানিয়েছেন দলটির নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। বিএনপি নির্বাচনে যাবে এবং সে নির্বাচন হবে অবাধ। কিন্তু অবাধ নির্বাচনে সরকারই প্রধান বাধা।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের তৃতীয় তলার কনফারেন্স লাউঞ্জে এক আলোচনা সভায় এ কথা জানান দলটির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য। আয়োজক সংগঠনের সভাপতি রমিজ উদ্দিন রুমির সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মো. ইব্রাহিম বীর প্রতীক, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য বিলকিস ইসলাম, জাগপার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, জিনাফের সভাপতি মিয়া মো. আনোয়ার, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, দেশের মালিক জনগণ। তারাই সিদ্ধান্ত দেবে আগামী দিনে আমাদের কী করতে হবে। তাদের আকাক্সক্ষার জন্য আমাদেরকে লড়াই করতে হবে। অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন করার জন্য যা যা করা দরকার খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আমাদেরকে করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে কি করবে না, এটা আমার কাছে বেশি গুরত্বপূর্ণ না। আমার কাছে বেশি গুরত্বপূর্ণ দেশের মানুষ ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারল কি না, সেটি।

যেহেতু বিএনপি বহুদলীয় গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে। তাই জনগণ যাতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিতে পারে, এমন নির্বাচন আদায় করাই হলো আমাদের দায়িত্ব, বিএনপির কাজ, বলেন বিএনপির অন্যতম এই নীতিনির্ধারক।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে প্রতারণার নির্বাচন অভিহিত করে তিনি বলেন, ওই ধরনের নির্বাচন করার মতো সুযোগ বা সামর্থ্য ক্ষমতাসীনদের নেই। এই সরকারের বিএনপিকে বাদ দিয়ে নির্বাচন করার সামর্থ্যও যেমন নাই, তেমনি বিএনপিকে নিয়ে নির্বাচন করার সৎসাহসও নাই।

জনগণ ভোটকেন্দ্রে গিয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবে কি না তা নিয়ে শঙ্কায় আছেন, দাবি করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, দেশে শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে আশঙ্কামুক্ত হবে না মানুষ। তারা ভোটকেন্দ্রে যাবে না। তাহলে আমরা ভোটকেন্দ্রে কাকে নিয়ে যাব?

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ