মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০
Online Edition

৭ মার্চ জাতীয় দিবস ঘোষণার রুলের শুনানি ১ ফেব্রুয়ারি

 

স্টাফ রিপোর্টার : সাত মার্চকে ঐতিহাসিক জাতীয় দিবস হিসেবে কেন ঘোষণা করা হবে না-তা জানতে চেয়ে জারি করা রুল শুনানির দিন পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি দিন নির্ধারণ করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এই সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সরকারপক্ষে সময় আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহ সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে সরকার পক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস। অন্যদিকে রিটের পক্ষে ছিলেন ড. বশির আহমেদ।

এর আগে গত বছরের ২০ নবেম্বর সাত মার্চকে ঐতিহাসিক জাতীয় দিবস হিসেবে  কেন  ঘোষণা করা হবে না-তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। এছাড়া সাত মার্চকে ঐতিহাসিক জাতীয় দিবস হিসেবে কেন ঘোষণা করা হবে না, সাত মার্চ বঙ্গবন্ধু যে স্থানে যে মঞ্চে ভাষণ দিয়েছিলেন পাকিস্তানি বাহিনীর আত্মসমর্পণ ও ইন্ধিরা গান্ধীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে সেই স্থানে মঞ্চ পুন:নির্মাণ এবং বক্তব্যরত বঙ্গবন্ধুর আঙুল তোলা ভাস্কর্য কেন নির্মাণ করা হবে না-তা জানতে চান আদালত। মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে এ বিষয়ে পদক্ষেপ আদালতে জানাতে বলা হয়। মন্ত্রিপরিষদ সচিব তার পদক্ষেপ আদালতে জানাতে না পারায় সরকার পক্ষ সময়ের আবেদন করে। আদালত সময় আবেদন মঞ্জুর করে ১ ফেব্রুয়ারি রুল শুনানির দিন নির্ধারণ করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ