বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

আদমদীঘির অপহৃতা গৃহবধূ এক মাস পর শেরপুর থেকে উদ্ধার

আদমদীঘি (বগুড়া) সংবাদদাতা : বগুড়ার আদমদীঘির মিতইল গ্রামের ভজেন্দ্রনাথ বর্মনের স্ত্রী ভারতী রানী বর্মন (২৭) নামের এক হিন্দু গৃহবধু অপহরনের ১ মাস পর গত রবিবার বগুড়ার শেরপুর এলাকা থেকে উদ্ধার করেছেন থানা পুলিশ। মুল অপহরনকারী মিজানুর রহমানকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনী। অফিসার ইনচার্জ আবু সায়িদ মোঃ ওয়াহেদুজ্জামান অপহৃতা গৃহবধুকে উদ্ধারের কথা নিশ্চিত করেন। মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই আব্দুর রাজ্জাক জানায়, অপহৃতাকে উদ্ধার করা হয়েছে। মুল আসামী মিজানুরকে গ্রেফতারের তৎপরতা চালানো হচ্ছে।
উল্লেখ্য, আদমদীঘির মিতইল গ্রামের ভজেন্দ্রনাথ বর্মনের স্ত্রী ভারতী বর্মন (২৭) কে একই গ্রামের সেকেন বরের ছেলে ২ সন্তানের জনক মিজানুর রহমান মোবাইল ফোনে বিভিন্ন সময় অশালীন কথা ও কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। বিষয়টি তার পরিবারের লোকজনকে ভারতী জানালে তারা মিজানুরের বিরুদ্ধে থানায় একটি সাধারন ডাইরী করেন। মিজানুর রহমান ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২৭ নভেম্বর দিবাগত রাতে তার সহযোগীদের নিয়ে ভারতী রানী বর্মন কে অপহরন করে নিয়ে যায়। এব্যাপারে ভারতীর স্বামীর বড় ভাই গজেন্দ্রনাথ বর্মন গত ১ লা ডিসেম্বর থানায় একটি অপহরন মামলা দায়ের করেন।
ব্যস্ত সময় পার করছেন: বগুড়ার আদমদীঘিতে আমন ধান কাটা মাড়াইয়ের পর রসালো জমিতে আলু লাগানোর পর তা এখন পরিচর্যায় ব্যস্তসময় পার করছে কৃষকরা। উপজেলায় ৬ হাজার হেক্টর জমিতে আলু, সরিষা আবাদ করা হচ্ছে। তার মধ্যে পাকরী, ফাঁটা পাকরী, দেশী হাগরাই, ললিতা, কাটিলাল, ভুটান, জাম আলু সহ বিভিন্ন জাতের আলু আবাদ করা হয়েছে।
কৃষি অফিস সুত্রে জানাযায়, আদমদীঘি উপজেলায় চলতি রবিশষ্য আবাদে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে কৃষকরা। এবছর উপজেলায় ২ হাজার ৫ শ হেক্টর জমিতে আলু ও ৩ হাজার ৫ শত হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদ হচ্ছে। মাঠ ঘুরে দেখা গেছে গত বছর আলুর ভালো দাম পাওয়ায় চলতি আলু মৌসুমে কোমর বেধে মাঠের পর মাঠ আলু ও সরিষা আবাদ করেছে। যেদিকে চোখ যায় সেদিকে যেন সবুজের সমারহে ভরে গেছে আলু সরিষার সবুজ গাছে। কয়েক জন কৃষক জানায় আমন ধান কাটা মাড়াইয়ের পর ওই জমিগুলোতে অল্প খরচে বেশি লাভবান হওয়া আশায় আলু আবাদ করা হয়। ফলন ভালো হলে নায্য দাম পেলে খরচের চেয়ে দ্বিগুন লাভ করা সম্বভ।
উপজেলা কৃষি অফিসার ও কৃষিবিদ কামরুজ্জামান জানায়, আলু ও সরিষা আবাদের প্রথম থেকে কৃষককে যাবতীয় পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে এবং আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে ফলন ভালো হবে ও কৃষক লাভবান হবেন বলে তিনি আশা করছেন।
এলাকায় মাইকিং: বগুড়ার আদমদীঘি এলাকায় গরু চুরি রোধে জনসচেতনামুলক অফিসার ইনচার্জ আবু সায়িদ মোঃ ওয়াহেদুজ্জামানের পরামর্শে সদর ইউপি চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমানের উদ্যোগে গতকাল রবিবার সদর ইউনিয়নে সকল স্থানে মাইকিং করেন।
অফিসার ইনচার্জ আবু সায়িদ মোঃ ওয়াহেদুজ্জামান জানান, চলতি শৗতকালীন মৌসুমে ঘন কুয়াশা ও ধান কাটার পর মাঠ ফাঁকা থাকায় আদমদীঘিতে গরু চুরি ঘটনা ঘটছে। এসব ঘটনা রোধ করতে টহল পুলিশ জোরদার করা হয়েছে। পুলিশের টহলের পাশাপাশি প্রতিটি গ্রাম মহল্লায় দল করে পাহারা (বিট) দেওয়ার জন্য সকলকে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। ইতি মধ্যে ইউনিয়নের কিছু কিছু গ্রামে পাহারা (বিট) দেওয়া শুরু হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ