মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

জন্মদিন পরিণত হলো মৃত্যুদিনে

 

১৯ ডিসেম্বর, রয়টার্স : বন্ধুদের নিয়ে রেস্তোরাঁয় জন্মদিন পালন করতে এসে লাশ হয়ে ফিরতে হলো ভারতের মুম্বাইয়ের এক নারীকে।

গত বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে মুম্বাইয়ের লোয়ার প্যারেল এলাকার কমলা মিলস নামের একটি বাণিজ্যিক ভবনে অগ্নিকা-ে অন্তত ১৪ জন নিহত হয়েছে, যাদের অধিকাংশই নারী।

নিজের জন্মদিন উদযাপন করতে এসে লাশ হওয়া ২৮ বছরের তরুণী খুশবু মেহতার দাদা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে  বলেন, “আমার নাতনি মারা গেছে। আজ তার জন্মদিন ছিল। কেউই রেস্তোরাঁটির সুরক্ষা ব্যবস্থা আছে কিনা তা দেখার প্রয়োজন অনুভব করেনি... সেখানে আগুন নেভানোর কোনো ধরনের যন্ত্রপাতি ছিল না। এমনকি দুর্ঘটনায় বাইরে বেরিয়ে যাওয়ার ঠিকঠাক রাস্তাও ছিল না। প্রশাসন এবং পুলিশ কিছুই করেনি।”

এনডিটিভি জানায়, খুশবুর স্বামী তার মৃতদেহ সনাক্ত করেছে।

ভারতের সংবাদ মাধ্যমগুলো জানায়, ‘ওয়ান এবাভ’ নামের একটি রেস্তোরাঁ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। সেখানে জন্মদিনের অনুষ্ঠান চলছিল। নিহতদের বেশিরভাগই ওই অনুষ্ঠানে আসা অতিথি।

 ধোঁয়ায় দম আটকে তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। বেশিরভাগ মৃতদেহ রেস্তোরাঁটিতে নারীদের ওয়াশরুমের কাছে পাওয়া গেছে বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা। স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ১২টার দিকে যখন ভবনটিতে আগুন লাগে তখন ছাদে প্রায় দেড়শ মানুষ ছিলেন।

আগুন ‘ওয়ান এবাভ’ রেস্তোরাঁ থেকে পাশের ‘ মোজো বিস্ট্রো’ তে ছড়িয়ে পড়ে।

প্রায় তিন ঘণ্টার চেষ্টা আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ‘ওয়ান এবাভ’ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। আগুন থেকে প্রাণে বেঁচে যাওয়া ডা. সুলভা কে জি আরোরা টুইটারে তার ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার কথা বর্ণনা করেন।

তিনি লেখেন, “আমরা কিছু বুঝে উঠার আগেই পুরো এলাকা কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে ধোঁয়ায় ভরে যায়। সবাই দৌড়াচ্ছিল, কেউ একজন আমাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। লোকজন আমাকে মাড়িয়ে দিয়ে দৌড়াচ্ছিল। এক পর্যায়ে জলন্ত সিলিং আমার উপর ভেঙ্গে পড়ে।

“কিভাবে আমি বেঁচে গেলাম তা এখনও জানি না। নিশ্চয়ই কোনো শক্তি আমাকে বাঁচিয়েছে।”

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ