শুক্রবার ২৯ মে ২০২০
Online Edition

রাণীনগরে “র‌্যাফেল ড্র” নামক জুয়ার ফাঁদে সাধারণ মানুষ!

 

রাণীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা : নওগাঁ জেলা সদর, আত্রাই ও বদলগাছী উপজেলায় মেলা ও সার্কাসের অন্তরালে চলা র‌্যাফল ড্র নামক লটারির টিকিট বিক্রির ধুম পরেছে রাণীনগর উপজেলায়। প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কেউ ট্রাকে কেউ সিএনজিতে কেউবা অটো চার্জারে মাইকিং করে বিক্রি করছে লটারি নামক জুয়ার টিকিট। লটারিতে আকর্ষণীয় ও লোভনীয় অফারের ফেলানো ফাঁদে পরে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে রাণীনগরের সাধারণ মানুষ। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসিনতায় প্রতিনিয়ত অহ-রহ গাড়ী রাণীনগর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ঢুকে লটারির টিকিট বিক্রি করছে। দেখে মনে হবে রাণীনগর যেন লটারি নামক জুয়ার নগরীতে পরিণত হয়েছে।

জানা গেছে, সম্প্রতি নওগাঁ জেলা সদরে “নওগাঁ চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ড্রাষ্ট্রি’র আয়োজনে শিল্প ও বাণিজ্য মেলার “দৈনিক স্বপ্ন ছোঁয়া” এবং জেলার বদলগাছী উপজেলার সেনপাড়া নামক স্থানে বদলগাছী প্রতিবন্ধি মানুষের সাহায্যার্থে “আশার আলো র‌্যাফেল ড্র” ও জেলার আত্রাই উপজেলায় “দৈনিক ফাইভ স্টার” র‌্যাফেল ড্র নামক লটারি চলছে। আর এসব লটারির টিকিট সংশ্লিষ্ট এলাকাসহ ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা হিসেবে চিহ্নিত রাণীনগর উপজেলার সদর বাজার, আবাদপুকুর বাজার, সিম্বা, লোহাচূড়া, চৌমোহনী, বেলঘড়িয়া, খাঁনপুকুর, বগারবাড়ি, কুবরাতলি, কুজাইল, বেতগাড়ী বাজার সহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কেউ ট্রাকে, কেউ সিএনজিতে আবার কেউ অটোচার্জারে মাইকিং করে অবাদে বিক্রি করছে লটারির টিকিট। র‌্যাফেল ড্র নামক জুয়ায় মাত্র ২০ টাকা মূল্যের টিকিটে অধিক টাকার আকর্ষণীয় ও লোভনীয় পুরস্কার জিতে রাতা-রাতি নখ ফুলে কলাগাছ বুনে যাবার স্বপ্নে টিকিট কিনতে হুমরি খেয়ে পরছে লোকজন। এতে স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে প্রায় সব শ্রেণী পেশার মানুষ আসক্ত হয়ে পড়ছে এই জুয়ার নেশায়। বিশেষ করে স্থানীয় ক্যাবল নেটওয়ার্ক সিডি চ্যানেলে সরাসরি প্রচার করার ঘোষণায়  নিজ ঘরে বসে খেলাগুলো সারসরি উপভোগ করতে পারার আসায় টিকিট কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে লোকজন। বিভিন্ন ব্যান্ডের মটরসাইকেল, গরু, সোনার গহনা সহ বিভিন্ন আর্কষণীয় পুরস্কারের ঘোষণা দিয়ে মন ভুলানো কথা বলে সকাল থেকে সন্ধ্যা অবদি বিরতিহীন ভাবে টিকিট বিক্রয় করে যাচ্ছে। এই এলাকার রিক্সা/ভ্যান চালক থেকে শুরু করে অনেক শ্রমজীবী, পেশাজীবী মানুষের কাছে টিকিট কেনা যেন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার মত হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে র‌্যাফেল ড্র নামক ফেলানো ফাঁদে পরে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে রাণীনগরের সাধারণ মানুষ। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা সদরে ভ্যান চালক আমির হোসেন (৩৪) জানান, তিনি মটরসাইকেল পাবার আসায় ২০ টাকায় লটারির টিকিট কিনেছেন। উপজেলার সিম্বা গ্রামের মো: আমিনুর ইসলাম ও মহিদুল ইসলাম সহ অনেকেই জানান, র‌্যাফেল ড্র শুরু হবার পর থেকে তারা দামী পুরস্কার পাবার আসায় প্রতিদিন ৫টি করে টিকিট কিনছেন।

নওগাঁ, বদলগাছী ও আত্রাই উপজেলায় বিভিন্ন উন্নয়নের নামে র‌্যাফেল ড্র’র টিকিট রাণীনগর উপজেলায় মাইকিং করে অবাদে বিক্রি করতে পারেন কি-না? বা বিক্রির অনুমতি আছে কি-না? এমনটি জানতে চাইলে রাণীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোনিয়া বিনতে তাবিব জানান, এটি শিল্প ও বানিজ্য মন্ত্রনালয়ের ব্যাপার। তাছাড়া রাণীনগরে লটারীর টিকিট বিক্রির অনুমতি আছে কি-না তা আমার জানা নেই। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট মেলার আয়োজকদের নিকট জানতে পারবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ