শুক্রবার ২৯ মে ২০২০
Online Edition

মেহেরপুরের ফজিলাতুন্নেসার ইন্তিকালে জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীরের শোক

 

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর প্রবীণ মহিলা রুকন মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর উপজেলার শিবপুর গ্রাম নিবাসী মোছাঃ ফজিলাতুন্নেসা ৬৫ বছর বয়সে গত বুধবার ৪টায় পেটের অসুখে আক্রান্ত হয়ে ইন্তিকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি ২ পুত্রসহ বহু আত্মীয়-স্বজন রেখে গিয়েছেন। গত বুধবার বাদ এশা নামাজে জানাজা শেষে তাকে শিবপুর কবর স্থানে দাফন করা হয়েছে। তার নামাজে জানাজায় মেহেরপুর জেলা জামায়াতের আমীর তাজউদ্দিন খান ও শিবপুর উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা খানজাহানসহ স্থানীয় জামায়াত নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

শোকবাণী: জামায়াতে ইসলামীর প্রবীণ মহিলা রুকন মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর উপজেলার শিবপুর গ্রাম নিবাসী মোছাঃ ফজিলাতুন্নেসার ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করে জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান গতকাল বৃহস্পতিবার শোকবাণী দিয়েছেন।  

শোকবাণীতে তিনি বলেন, মোছাঃ ফজিলাতুন্নেসা (রাহিমাহুল্লাহ) কে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা ক্ষমা ও দয়া করুন এবং তাকে নিরাপত্তা দান করুন। তাকে সম্মানিত মেহমান হিসেবে কবুল করুন ও তার কবরকে প্রশস্ত করুন। তার গুণাখাতাগুলোকে নেকিতে পরিণত করুন। তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন। তার শোকসন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাদের এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন। 

নরসিংদীর সকিনা খাতুনের ইন্তিকালে শোক: জামায়াতে ইসলামীর প্রবীণ মহিলা রুকন নরসিংদী জেলার পলাশ উপজেলার কান্দাপাড়া গ্রাম নিবাসী সকিনা খাতুন গত বুধবার পৌণে ৪টায় বার্ধক্যজনিত রোগে ইন্তিকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি ৩ পুত্র ও ৫ কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন রেখে গিয়েছেন। গত ২৭ ডিসেম্বর বাদ জোহর কান্দাপাড়া গ্রামে নিজ বাড়িতে নামাজে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবর স্থানে দাফন করা হয়েছে।

শোকবাণী: জামায়াতে ইসলামীর প্রবীণ মহিলা রুকন নরসিংদী জেলার পলাশ উপজেলার কান্দাপাড়া গ্রাম নিবাসী সকিনা খাতুনের ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করে জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান শোকবাণী দিয়েছেন।  

শোকবাণীতে তিনি বলেন, সকিনা খাতুন (রাহিমাহুল্লাহ) কে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা ক্ষমা ও দয়া করুন এবং তাকে নিরাপত্তা দান করুন। তাকে সম্মানিত মেহমান হিসেবে কবুল করুন ও তার কবরকে প্রশস্ত করুন। তার গুণাখাতাগুলোকে নেকিতে পরিণত করুন। তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন। তার শোকসন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাদের এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন।

সাখাওয়াত হোসেনের ইন্তিকালে শোক : জামায়াতে ইসলামীর রুকন ও শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা সভাপতি বাগডুমুর গ্রাম নিবাসী হাজী সাখাওয়াত হোসেন ৫০ বছর বয়সে গত ২৪ ডিসেম্বর ব্রেইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে বগুড়াস্থ শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তিকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি স্ত্রী, ১ পুত্র ও ১ কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন রেখে গিয়েছেন। গত ২৫ ডিসেম্বর সকাল ৯টায় বাগডুমুর মাদরাসা মাঠে নামাজে জানাজা শেষে তাকে বাগডুমুর কবর স্থানে দাফন করা হয়েছে। 

শোকবাণী: জামায়াতে ইসলামীর রুকন ও শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা সভাপতি বাগডুমুর গ্রাম নিবাসী হাজী সাখাওয়াত হোসেনের ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করে জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান শোকবাণী দিয়েছেন।  

শোকবাণীতে তিনি বলেন, হাজী সাখাওয়াত হোসেন (রাহিমাহুল্লাহ) কে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা ক্ষমা ও দয়া করুন এবং তাকে নিরাপত্তা দান করুন। তাকে সম্মানিত মেহমান হিসেবে কবুল করুন ও তার কবরকে প্রশস্ত করুন। তার গুণাখাতাগুলোকে নেকিতে পরিণত করুন। তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন। তার শোকসন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা তাদের এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ