বৃহস্পতিবার ২৬ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

আলফাডাঙ্গায় পৌর ও ইউপি নির্বাচন প্রচারণা জমে উঠছে

ফরিদপুর থেকে সংবাদদাতা : জেলার আলফাডাঙ্গা পৌরসভা ও উপজেলার সদর, বুড়াইচ ও গোপালপুর এই তিন ইউপিতে ২৮ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের দিন যতোই ঘনিয়ে আসছে ততোই বাড়ছে প্রার্থীদের প্রচারণা। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনা, গণসংযোগ ও শোডাউনে সরগরম হয়ে উঠেছে পরিবেশ।
আলফাডাঙ্গা পৌরসভা র্নিবাচনে নৌকা প্রতীক পেয়েছেন উপজেলা যুুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান সাইফার। আর বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন খান আতাউর রহমান। এখানে আ’লীগে রয়েছেন একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী। আলফাডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মকিবুল হাসান  পুটু মিয়া (জগ) ও উপজেলা আ’লীগের উপদেষ্টা সদস্য সামসুদ্দীন  আহমেদ (মোবাইল)। স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে তারা জোর প্রচারণা চালাচ্ছেন।
আলফাডাঙ্গা সদর ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহাদুল হাসান এবার আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন। একাধিকবার ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হলেও এবার দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী অবস্থানে রয়েছেন তিনি। তাঁর পিতাও এ ইউনিয়নে ইতিপূর্বে একাধিকবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। সম্প্রতি উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান নির্বাচিত ’ক্লিন ইমেজে” থাকা আহাদুল হাসান এবারেও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। এখানে নৌকার প্রার্থী হয়েছেন সদর ইউনিয়নের ৭নং ওর্য়াড আ’লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক।
গোপালপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম এবারের নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। তাঁর বিপরীতে আওয়ামীলীগ মনোনয়ন পেয়ে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করছেন জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক ইনামুল হাসান। এ ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে আরো রয়েছেন চশমা প্রতীকে আবদুর রহমান জিকো ও মোটর সাইকেল প্রতীকে সৈয়দ মাছুদ রানা।
বুড়াইচ ইউনিয়নেও বর্তমান চেয়ারম্যান আলফাডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহাব পান্নু দলীয় মনোনয়ন পাননি। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তিনি আনারস প্রতীকে নির্বাচন করছেন। তার বিপরীতে নৌকার প্রার্থীতা পেয়েছেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হাসাউদ্দৌলা রানা। এছাড়া এ ইউনিয়নে জাহাঙ্গীর আলম নামে মোটর সাইকেল প্রতীকে রয়েছেন আরো একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী।     
সাধারন ভোটারদের অভিমত জানতে চাইলে তারা বলেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রাপ্তরা তুলনামূলকভাবে তরুণ মুখ। ভোটারদের মাঝে এ বিষয়টি ব্যাপক প্রভাব ফেলবে। অপরদিকে আলফাডাঙ্গা পৌরসভা ও তিনটি ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যানগণ দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল বাশারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রতিবেদককে বলেন, কেউ বিদ্রোহী প্রার্থী হলে কি আর করা? এখানে সকল প্রার্থীই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুগত। তাই নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীরাই বিজয়ী হবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ