মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

বাংলাদেশের মাটিতে কখনও জঙ্গিবাদের জায়গা হবে না

লালমোহন (ভোলা) সংবাদদাতা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল  বলেছেন, বাংলাদেশকে উন্নয়নয়শীল রাষ্ট্রে পরিনত করতে শেখ হাসিনার সরকারের কোনো বিকল্প নেই। ২০৪১ সালের মধ্যে এই দেশ পৃথিবীতে উন্নত দেশে পরিনত হবে। তাই আ’লীগকে আবারো নির্বাচিত করে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিতে হবে। শনিবার ভোলার লালমোহনে এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আরো বলেন, মানবিক বিপর্যয় এরাতে রহিঙ্গা মুসলমানদের জন্য বর্ডার খুলে দিয়ে শেখ হাসিনা পৃথিবীতে মাদার অফ হিউম্যিানিটি খেতাব পেয়েছেন। এখন রহিঙ্গা সমস্যার সমাধান আন্তর্জাতিকভাবে মোকাবেলা করা হবে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, প্রধান মন্ত্রীকে প্রতিটি মুহূর্তে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে চলতে হয়। বোমার পর বোমা, গ্রেনেডেরে পর গ্রেনেড, জঙ্গিবাদ সহ নানা চ্যালেঞ্জ। পুলিশ জীবন বাজী রেখে এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে যাচ্ছে। দেশ থেকে জঙ্গীবাদ সন্ত্রাস নির্মুল করা হচ্ছে। শেখ হাসিনার সরকার সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ জিরো টলারেন্স দেখতে চায়। বাংলাদেশের মাটিতে কখনও জঙ্গীবাদের জায়গা হবে না।
লালমোহন উপজেলা আ’লীগের আয়োজনে এই জনসভায় ভোলা-৩ আসনের এমপি নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনকে উদ্দেশ্য করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, আমি শাওনকে দেখছি যুবকদের অহংকার হিসেবে। আমি মনে করি লালমোহন-তজুমদ্দিনবাসী উপযুক্ত এক মেধাবীর সন্ধান পেয়েছে। যিনি ঢাকায় ছাত্র রাজনীতি ও যুব রাজনীতি করে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়ে এখন এই জনপদের মানুষের উন্নয়নে হাল ধরেছেন।
তাই এই জনপদের ভাগ্য বিড়ম্বিত মানুষ নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনকে আবারো নির্বাচিত করবে।
সভাপতির বক্তৃতায় এমপি শাওন বলেন, ২০০১ সালের নির্বাচনের পর এই জনপদের তরুন-যুবকদেরকে কানামাছি, মৌ-মাছি, হকিষ্টিক বাহিনীতে পরিণত করে বিপদগামী করেছে মেজর হাফিজ। যার ফলে লালমোহন-তজুমদ্দিন উপজেলা সন্ত্রাসের জনপদে পরিণত হয়েছে। এখন এই জনপদ শান্তির জনপদ। শেখ হাসিনার উন্নয়ন দেখে আজকে এই জনপদের তরুন যুবকরা সন্ত্রাসের পথ পরিহার আ’লীগে যোগ দিচ্ছে। তারা আজ তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে আউট সোর্সিংয়ের কাজ করে নিজেদের ভাগ্য বদল করছে। শিক্ষা-স্বাস্থ্য উন্নয়ন, যোগাযোগ ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে লালমোহন-তজুমদ্দিনে।  
এর আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, লালমোহন ও তজুমদ্দিন থাানার নব নির্মিত দু’টি ৫তলা ভবনের উদ্বোধন করেন।
জনসভায় লালমোহন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন আহমদ, ভাইস চেয়ারম্যান ফকরুল আলম হাওলাদার, লালমোহন পৌরসভার মেয়র এমদাদুল ইসলাম তুহিন, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী রেজা মিয়া, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক দিদারুল ইসলাম অরুন ও পৌর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বাদল সহ বিভিন্ন নেতারা বক্তৃতা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ