সোমবার ০১ জুন ২০২০
Online Edition

পাইকগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৬ চিকিৎসকের কাছে চাঁদা দাবি

খুলনা অফিস: খুলনার পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৬ চিকিৎসকের কাছে পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির নাম ব্যবহার করে জনৈক বিপ্লব নামের এক ব্যক্তি চাঁদার দাবি করেছে। মোবাইল ফোনে চাঁদার দাবি করে নানা রকমের ভয়-ভীতিও দেখানো হয়েছে চিকিৎসকদের। এ ঘটনার পর থেকে ডাক্তার পাড়ায় চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। এদিকে এ ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রভাত কুমার দাশ সোমবার রাতেই থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার বেলা ২টার দিকে পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির নাম ব্যবহার করে জনৈক বিপ্লব নামের এক ব্যক্তি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রভাত কুমার দাশের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে গ্রামীণ ফোনের শেষের দু’টি নম্বর ৪২ এমন একটি নম্বর থেকে ফোন করে। সে সময় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা খুলনায় মাসিক সভায় অবস্থান করছিলেন। ফোনে জনৈক বিপ্লব নামের এক ব্যক্তি বলে তার বসের সাথে কথা বলেন। পরবর্তিতে তার বস পরিচয়ের ব্যক্তি বলে তাদের দলের অনেক সদস্য বর্তমানে অসুস্থ তাদের চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার দরকার। সে কারণে ডাক্তারদের কাছে সহযোগীতা চাচ্ছেন। যদি তাদেরকে টাকা না দেয়া হয় তাহলে পরিবারের সদস্যদের অনেক ক্ষয়ক্ষতি হবে বলে নানান হুমকি দেয়া হয়। সভা শেষে নিজ কর্মস্থল পাইকগাছায় এসে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানতে পারেন কপিলমুনি হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. আব্দুর রব এর নিকট বেলা ১ টা ৫৭ মিনিটে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মিঠুন দেবনাথ এর নিকট বেলা ২ টার দিকে, ডা. সঞ্জয় কুমার মন্ডল এর কাছে বেলা ২ টা ১ মিনিটের দিকে, ডা. প্রশান্ত কুমার ম-ল এর কাছে বেলা ২ টা ৩ মিনিটের দিকে এবং আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুজন কুমার সরকারের কাছে বেলা ২ টা ৬ মিনিটের দিকে একই নম্বর দিয়ে তাদের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে ফোন দিয়ে একই কথা বলে চাঁদা এবং তাদের চাঁদার টাকা না দিলে পরিবারের সদস্যদের ক্ষতি হবে বলে নানান হুমকি দেয়া হয়। এরপর থেকে ডাক্তার পাড়ায় চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। তবে ঘটনার পর থেকে উক্ত নম্বরটি বন্ধ পাওয়া গেছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। চিকিৎসকদের কাছে চাঁদা দাবি, হুমকি এবং ডাক্তরদের আতঙ্কের বিষয়টি তাৎক্ষণিক উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রভাত কুমার দাশ সিভিল সার্জনকে মোবাইল ফোনে অবহিত করেন। রাতেই এ ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রভাত কুমার দাশ ও অন্যান্য ডাক্তারবৃন্দ উক্ত ফোন নম্বর উল্লেখ করে পাইকগাছা থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছেন।

পাইকগাছা থানার ওসি মো. আমিনুল ইসলাম বিপ্লব জানিয়েছেন বিষয়টি অতি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে তদন্ত পুর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ