বৃহস্পতিবার ০৪ জুন ২০২০
Online Edition

তেরখাদা ও বটিয়াঘাটায় স্থাপিত  হচ্ছে অর্থনৈতিক জোন

 

খুলনা অফিস: খুলনা জেলার তেরখাদা উপজেলার কোলা পাটগাতি মৌজা ও বটিয়াঘাটা উপজেলার তেতুলতলা মৌজায় দু’টি অর্থনৈতিক জোন স্থাপন প্রক্রিয়া দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। গত সপ্তাহে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জমি অধিগ্রহনের জন্য অনুমতি চেয়ে দাপ্তরিক চিঠি দেয়া হয়েছে। সারাদেশের তুলনায় খুলনার দু’টি অর্থনৈতিক জোন সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে অগ্রগতি চলছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। অর্থনৈতিক জোনটি প্রতিষ্ঠা পেলে এতদাঞ্চলের প্রায় এক লাখ মানুষের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের খুলনা ও বরিশাল বিভাগে ১২টি অর্থনৈতিক জোন অনুমোদিত হয়েছে। তার মধ্যে একটি বেসরকারি পর্যায়ের বাকিগুলো সরকারি তত্ত্বাবধানে গড়ে উঠবে। শিল্প খাতের দ্রুত বিকাশ, উৎপাদন, কর্মসংস্থান, রফতানি বৃদ্ধি ও বহুমুখীকরণে উৎসাহ প্রদান, পশ্চাৎপদ ও অনগ্রসর এলাকার উন্নয়নের লক্ষ্যে অর্থনৈতিক জোন করা হচ্ছে। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক জোন কর্তৃপক্ষ এ উদ্যোগ নিয়েছে। মংলা অর্থনৈতিক জোনের ডেভেলপার নিয়োগ হয়েছে। আগামী ১৫ বছরের মধ্যে দক্ষিণাঞ্চলে এসব অর্থনৈতিক জোন গড়ে উঠবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে অর্থনৈতিক জোনের কার্যক্রম প্রতিনিয়ত পর্যবেণ করছে। গত ১১ ডিসেম্বর ভারতীয় ভারতীয় হাইকমিশন হর্ষবর্ধন শ্রিংলাসহ একটি প্রতিনিধিদল খুলনা-মংলা রেললাইন প্রকল্প পরিদর্শন করেন। গত বছর (২০১৬) জুন মাসে ভারতীয় একটি প্রতিনিধিদল বটিয়াঘাটা উপজেলায় প্রস্তাবিত অর্থনৈতিক জোন পরিদর্শন করেন। ওই প্রতিনিধিদলে ছিলেন ভারতের এক্সটারনাল মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব অজিত ভেনায়েক গুপ্ত, উপ-সচিব প্রেম কে নীর, আন্ডার সেক্রেটারি ভিপুল কুমার মিশরী এবং ভারতের এক্সিম ব্যাংকের কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞ (কনসালট্যান্ট)। এছাড়া ওই বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদল জোনস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কর্তৃপক্ষ আশা প্রকাশ করছেন যে, দেশীয় শিল্পপতিরা ছাড়াও জাপান, কোরিয়া, ভারত, পানামা, তুরস্ক, ইউক্রেন, ডেনমার্ক, সুইডেন, ইতালি, চীন, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ডস, সংযুক্ত আরব আমিরাত নতুন অর্থনৈতিক জোনে পুঁজি বিনিয়োগ করবে। দক্ষিণাঞ্চলের অর্থনৈতিক জোনে সয়াবিন তেল, সুপারি, বাইসাইকেল, তাঁবু, ক্যামেরার লেন্স, কেমিক্যাল শিল্প, প্লাস্টিক দ্রব্য, এনার্জি সেভিং বাল্ব, গাড়ির যন্ত্রাংশ, বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট, চশমা, ব্যাটারি, ধাতব শিল্প, গলফ শ্যাফট, জুতার এক্সেসরিজ ইত্যাদি উৎপাদন হবে।

খুলনা জেলা প্রশাসকের দপ্তর সূত্রে জানা যায়,  বটিয়াঘাটা উপজেলার জলমা ইউনিয়নে তেঁতুলতলায় ৫৯৪ একর ও ওপর তেরখাদা উপজেলার কোলা পাটগাতী মৌজায় ৫১৭ একর জমি নিয়ে দু’টি অর্থনৈতিক জোন গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষ কয়েকদফা প্রস্তাবিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ