শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের টেস্ট অধিনায়কনামা

স্পোর্টস রিপোর্টার : দশম দল হিসেবে বাংলাদেশ টেস্ট মর্যাদা পায় ২০০০ সালে। সেবছরের ১০ নবেম্বর দেশের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে টেস্টে অভিষেক হয় টাইগারদের। আর দেশের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে ইতিহাসের পাতায় নাম লেখান নাইমুর রহমান দুর্জয়। ১৭ বছরের অভিযাত্রায় বাংলাদেশ দল মোট ১০৪টি টেস্ট খেলেছে। আর নয় জন ভিন্ন ভিন্ন টেস্ট অধিনায়ক দেখেছে। সাকিব আল হাসান গত রোববার মাত্রই দ্বিতীয় দফায় এই দায়িত্ব পেয়েছেন। তার অধীন বাংলাদেশ দল টেস্ট খেলার আগে চলুন শুনে আসি সব অধিনায়কের টেস্টে সফলতা ও ব্যর্থতার গল্প। অভিষেক টেস্টেই ভালো কিছু করার ইঙ্গিত দিয়েছিল বাংলাদেশ দল। যদিও সে পারফরম্যান্স পরের টেস্টগুলোতে ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। প্রথম অধিনায়ক দুর্জয়ের অধীনে সাতটি টেস্ট খেলেছিল টাইগাররা। সে সময় কোন ম্যাচ জিততে না পারলেও একটি ম্যাচ ড্র করেছিল বাংলাদেশ। তারপর দলনেতার দায়িত্ব পালন করেছেন উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান খালেদ মাসুদ পাইলট ও ডানহাতি পেসার খালেদ মাহমুদ সুজন। তাদের অধীনে যথাক্রমে ১২ ও ৯টি ম্যাচ খেলে প্রতিটিই হেরেছিল বাংলাদেশ। টেস্টে বাংলাদেশের প্রথম সফলতা আসে হাবিবুল বাশার সুমনের হাত ধরে। তার অধীনে ২০০৫ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম জয় পায় দল। তার ১৮ ম্যাচের অধিনায়কত্বকালে জয় ওই একটিই। সাথে ছিল চারটি ড্র। ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ আশরাফুল বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দিলেও টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে তিনি সফল ছিলেন না। তার অধীনে ১৩ টেস্টের ১২টিতেই হেরেছে বাংলাদেশ। একটি টেস্ট ড্র হয়েছিল। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সফলতম অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার টেস্ট অধিনায়কত্বের ভাগ্য ভালো না। দলনেতা হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে প্রথম টেস্টের শেষ দিনে চোট পান। এটি তাকে ৬ মাসের জন্য মাঠের বাইরে ঠেলে দেয়। তার ডেপুটি সাকিব আল হাসানের অধীনে ম্যাচটি জেতে বাংলাদেশ। এরপরের টেস্ট থেকেই পূর্ণাঙ্গ অধিনায়ক হিসেবে যাত্রা শুরু হয় সাকিবের। অধিনায়ক হিসেবে প্রথম টেস্টই জেতেন বিশ্বসেরা অল রাউন্ডার। আর ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করে দেশের বাইরে প্রথম টেস্ট সিরিজ জেতে বাংলাদেশ। সাকিবের সাফল্য ওই একটিই। তার অধীনে পরের আটটি টেস্টই হেরেছে দল। সদ্য সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৩৪ ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন বাংলাদেশকে। ক্রিকেটের এই ফরম্যাটে দেশের সেরা অধিনায়ক তিনিই। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার মত বড় দলকে তার অধীনেই প্রথমবার হারিয়েছে বাংলাদেশ। সাত জয়ের পাশাপাশি ড্র নয়টি। বাকি ১৮টি ম্যাচে হেরেছে বাংলাদেশ। মুশফিকের ইনজুরির কারণে এ বছরের শুরুতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে অধিনায়কত্ব করেছিলেন ডেপুটি তামিম ইকবাল। ম্যাচটি হেরেছিল বাংলাদেশ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ