শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০
Online Edition

কেশবপুরে শহরের ধানহাটার একটি দোকানঘর জবর দখলের নামে ভাঙচুর করে ৩ লাখ টাকার ক্ষতি সাধন

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা : যশোরের কেশবপুর শহরের ধান হাটের প্রাণ কেন্দ্রের একটি দোকানঘর জোর পূর্বক জবর দখল করার নামে প্রতিপক্ষরা ভাঙচুর করে প্রায় ৩ লাখ টাকার ক্ষতি সাধন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে ওই জমির মালিক নুর আলী মোড়ল বাদি হয়ে শুক্রবার ঘের মালিক কামরুজ্জামানসহ অজ্ঞাত ৮/১০ জনের নামে কেশবপুর থানায় একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন। 

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কেশবপুর শহরের আলতাপোল মৌজার সাবেক ২৫৬ দাগের ২ শতক জমি পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে দীর্ঘদিন ধরে দোকান ঘর নির্মাণ পূর্বক ব্যবসা বাণিজ্য করে আসছেন উপজেলার আলতাপোল গ্রামের মৃত ওমর আলী মোড়লের ছেলে নুর আলী মোড়ল। গত কয়েক বছর ধরে ওই দোকানঘর বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ার কারণে গত নবেম্বর মাস থেকে নুর আলী মোড়ল তার দোকান ঘরটি ভেঙে প্রায় ৩ লাখ টাকা ব্যয়ে নতুন করে টিনের ছাউনির একটি আধাপাকা ঘর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করেন। নির্মাণ কাজ শুরুর সাথে সাথেই একই গ্রামের মৃত আমজাদ বিশ্বাসের ছেলে ঘের ব্যবসায়ী কামরুজ্জামান ওই দোকান ঘর জবর দখলে নেয়ার হুমকি দিয়ে আসছিলেন। এরই সূত্র ধরে গত ৮ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় কামরুজ্জামান বহিরাগত ৮/১০ জন সন্ত্রাসী ভাড়া করে এনে ওই দোকান ঘরটি ভেঙেচুরে গুঁড়িয়ে দিতে থাকেন। এ সময় বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা নুর আলীকে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় ওই দিন সন্ধ্যায় জমির মালিক নুর আলী মোড়ল বাদি হয়ে কামরুজ্জামানসহ অজ্ঞাত ৮/১০ জনের নামে কেশবপুর থানায় একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন।  এ ব্যাপারে ঘের মালিক কামরুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, কারা তাদের দোকান ঘর ভাঙচুর করেছে তা তিনি জানেন না। তারা অহেতুক আমার নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগ করেছে। কেশবপুর থানার এএসআই মহসিন জানান, অভিযোগ পেয়েই ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়া  হয়েছে। প্রতিপক্ষরা ঘরটি সম্পূর্ণ গুঁড়িয়ে দিয়ে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করেছে। এ ব্যাপারে আইনগত  ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ