সোমবার ২৫ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

চাটমোহরের হান্ডিয়ালে অগ্নিকাণ্ডে কোটি টাকার ক্ষতি

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা : পাবনা চাটমোহর উপজেলার হান্ডিয়াল পূর্ববাজারে অগ্নিকাণ্ডে কোটিটাকার সম্পদ ভস্মীভূত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটেছে। অগ্নিকাণ্ডে অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।
জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত ৮.৩০  টার সময় পাবনার চাটমোহর উপজেলার  হান্ডিয়াল পূর্ববাজার দীনেশ ডাক্তারের দোকানে বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। আগুনে নিমিষের মধ্যেই  বাজারের ৬টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। রাত ৯টার দিকে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছায় এলাকার শতাধীক জনতার চেষ্টায় এবং ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট ২ ঘণ্টা চেষ্টার পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এতে  ৬ টি দোকান পুরে যায়। দোকান মালিকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মেসার্স চিরু ট্রেডার্সের মালিক স্বপন শীল বলেন, আমার সার, সিমেন্ট ও কীটনাশক পুড়ে প্রায় ৩০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। অপরদিকে ডাক্তার দীণেশ চন্দ্রর ফার্মেসির দোকানের মালামাল ও ১টি বাজাজ ১০০ সিসি মটর সাইকেল পুড়ে প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে এবং মকুল বসাকের মুদিদোকান পড়ে প্রায় ৭ লক্ষ, ইউসুফের কাচামাল ও মুদিদোকান পুড়ে ৩ লক্ষ, বজ শীলেরে সিটকাপড় সেলাই মেশিন পুড়ে ২ লক্ষ, ধরনী শীলের সেলুন পুড়ে প্রায় ১ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তারা সাংবাদিকদের জানান। তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে হান্ডিয়াল তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ ইন্সপেক্টর মোঃ শাহিন রেজা ও ভাঙ্গুড়া উপজেলার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বাকি বিল্লাহ  ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন। সকালে হান্ডিয়াল ইউপি চেয়ারম্যান কে এম জাকির হোসেন ও এলাকার নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থা পরিদর্শন করেন ও সমবেদনা জানান। এ বিষয়ে চাটমোহর ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ নজরুল ইসলাম বলেন, বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় এতে প্রায় কোটি টাকার মালামাল ক্ষতি হয়েছে। হান্ডিয়াল প্রেস-ক্লাবের  সভাপতি রফিকুল  ইসলাম রনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত  অসহায়  মানুষের  সহায়তার জন্য সরকারের হস্তক্ষেপ  আশু  প্রয়োজন।
৮ কৃষকের মালামাল পুড়ে ছাই : সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ভয়াবহ অগ্নিকা-ে ৮ কৃষকের ১১ টি ঘরসহ প্রায় ১৫ লক্ষাধিক টাকার মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। গত বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার সগুনা ইউনিয়নের ধাপতেতুলিয়া গ্রামের এ ঘটনা।
জানা গেছে, কৃষক মুকুলের ঘর থেকে বিদ্যুৎ সৃষ্ট আগুন কৃষক আসাদ মিঞা, কুদ্দুস আলী, চুনু মিঞা, ফরহাদ আলী, ফারুক হোসেন, হাসান আলী ও হাবু মিঞার ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। পরে গ্রামবাসী আনুমানিক ২ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।
আগুনে ১১টি ঘর, ধান-চাল, নগদ টাকা, ৭টি ছাগল, ২৬টি হাঁস এবং অর্ধ শতাধিক মুরগীসহ প্রায় ১৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা।
সগুনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহেল বাকী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বর্তমানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো খোলা আকাশের নীচে দিনাতিপাত করছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ