সোমবার ২৫ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সোসাইটির গেট টুগেদার

বিগত কয়েক বছর ধরে অভিজ্ঞ ও তরুণ প্রকৌশলীদের একই ছাদের নিচে আনা ও তাদের মেধা ও মননের সমন্বয়ে সমাজ ও কর্মক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য কিছু একটা করার স্বপ্ন দেখে আসছিলেন ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সোসাইটি (ইয়েস)। তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের শুরুটা হয়েছিল ২০১৪ সালে ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সামিট আয়োজনের মাধ্যমে। এরপর থেকে প্রায় সব উল্লেখযোগ্য সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবং প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের এর প্রকৌশলীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে সম্পন্ন হয়েছে বেশ কয়েকটি সফল আয়োজন। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নকে পূর্ণতা দিতে সম্প্রতি তরুণ প্রকৌশলীরা রাজধানী ঢাকার প্রাণকেন্দ্রে মিরপুর চিড়িয়াখানা, উৎসবদ্বীপ এ মিলন মেলায় হাজির হলেন পিকনিক আমেজে। একসাথে আড্ডা দিলেন, কেউ গাইলেন, কেউ শ্রোতা হলেন। খেলায় অংশ নিলেন। খাবার খেলেন একসাথে। “ক্যাম্পাস ভিত্তিক তরুণ ও অভিজ্ঞ প্রকৌশলীরা ,স্মৃতি খুঁজবো সারাবেলা”স্লোগানে একত্রিত হলেন।
দেশসেরা বিভিন্ন সনামধন্য প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলীরা,সরকারি এবং বেসরকারি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়(বুয়েট,কুয়েট,রুয়েট,ডুয়েট,রুয়েট,বিইউপি,এমআই,এসটি,ইউআইইউ,এনএসইউ,ব্র্যাক,আইইউবি,আহসানুল্লাহ,এশিয়াপ্যাসিফিক,এমএই,ইবি,স্টামফোর্ড,টাঙ্গাইল,যশোর,পাবনা,নোয়াখালী-প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ আরো বেশ কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানএর  ৫০০ বেশি তরুণ প্রকৌশলী ও বিদেশী প্রতিনিধির অংশগ্রহণে সর্ববৃহৎও মহামিলন মেলায় রূপ নেয়।
একগুচ্ছ বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে  উদ্বোধন করেন ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সোসাইটি (ইয়েস) এর স্বপ্নদ্রষ্টা ও চেয়ারম্যান,সাবেক সহ সাধারণ সম্পাদক আই,ই,বি  প্রকৌশলী শেখ আল আমিন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয় দেশ সেরা বরেণ্য বেতার শিল্পীদের কন্ঠে গাওয়া ইয়েস বিশেষ সংগীত এ সুর মিলিয়ে, আমরা করবো জয় একদিন,আছে প্রত্যয়,আমরা করবো জয় একদিন।
ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সোসাইটি (ইয়েস) প্রফেশনাল এর পাশাপাশি চাকরি করবো না,চাকরি দেব এই শ্লোগানে ২০০ এর অধিক অভিজ্ঞ ও তরুণ প্রকৌশলীরা ৬ টি শাখায় ইয়েস এন্টাপ্রেনিউর বাংলাদেশ লিমিটেড এ নতুন উদ্যোক্তা তৈরি করতে কাজ করছে। প্রফেশনাল এ  রয়েছে ২০টি ডিভিশন।
জমজমাট উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইয়েস এর সাধারণ সম্পাদক ও চেয়ারম্যান,ইয়েস পিকনিক কমিটি প্রকৌশলী মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন। ইয়েস এর সহ সাধারণ সম্পাদক ও সাধারণ সম্পাদক ইয়েস পিকনিক কমিটি প্রকৌশলী আরিফুর রহমান খান   স্বাগত বক্তব্য দেন। তিনি ইয়েস এর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা তোলে ধরেন।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন  ইয়েস এর ভাইস চেয়ারম্যান প্রকৌশলী রেজাউল ইসলাম।  তিনি দেশ বিদেশে ইয়েস এর কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করেন।
বুয়েট থেকে সদ্য সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করা সাব্বির আহমেদ বলেন, ইয়েস তরুণ এবং অভিজ্ঞদের মাঝে সমন্বয় তৈরী করে বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশ কে পরিচিত করবে।
ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি তে ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স এ অধ্যানিত  সোহান সরকার বলেন, ইয়েস পাবলিক  এবং প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি এর  মাঝে সেতুবন্ধন  তৈরী করবে
সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার প্রদানের মাধ্যমে, আগামীতে সফলতার প্রত্যয় নিয়ে অনুষ্ঠান টি শেষ হয়। ইয়েস এর পিকনিক কমিটি এর ভাইস চেয়ারম্যান সাইফউল্লাহ আল মামুন ও মেম্বারশিপ কমিটি এর চেয়ারম্যান সাজিদ হোসাইন সায়েম এর উপস্থাপনায়  বিভিন্ন ইভেন্ট সম্পন্ন হয়। সহযোগিতায় ছিলেন প্রকৌশলী  নূর আলম, মুন্নি ,জাহানারা মিতা, আলমগীর সোহাগ, একরাম হোসাইন সহ অনেকে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ