বুধবার ২০ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

ট্রাম্পকে অবিলম্বে ঘোষণা বাতিল করতে হবে -হেফাজত

জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ট্রাম্পের স্বীকৃতির প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার বাদজুমা রাজধানীতে হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগরীর মিছিল -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক সম্পূর্ণ অন্যায়, অবৈধ ও আগ্রাসী মনোভাব নিয়ে পবিত্র জেরুসালেম নগরীকে অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল রাজধানী। বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ ও মানববন্ধন করা হয়েছে। হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর বাদ জুমা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে। এতে যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা প্রত্যাহারের দাবিতে আগামী ১৩ ডিসেম্বর বুধবার ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস ঘেরাওয়ের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
মুসলমানদের প্রথম কেবলা পবিত্র বায়তুল মুকাদ্দাস নগরী জেরুসালেমকে যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক সম্পূর্ণ অন্যায় ও আগ্রাসী মনোভাব নিয়ে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ গতকাল শুক্রবার সারা দেশে বাদ জুমা প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি পালন করেছে।
গতকাল বাদ জুমা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর এক বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে। এতে হাজার হাজার তৌহিদী জনতা শরীক হয়ে মার্কিন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন।
হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমীর ও ঢাকা মহানগর সভাপতি আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- মাওলানা মাহফুজুল হক, ড. আহমদ আব্দুল কাদের, মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, মাওলানা মুজিবুর রহমান পেশওয়ারী, অধ্যাপক মাওলানা আব্দুল করীম, মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা মুফতী শরীফুল্লাহ, মাওলানা ফয়সাল আহমদ, মাওলানা জয়নাল আবেদীন, মাওলানা এনামুল হক, মাওলানা আজিজুল হক, মুহাম্মদ আমীর আলী হাওলাদার প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, অবিলম্বে ট্রাম্পকে এই ঘোষণা প্রত্যাহার করতে হবে।
না হয় বিশ্বব্যাপী শান্তিকামী মানুষের প্রতিবাদ বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়বে। বক্তারা বলেন, মুসলমানদের প্রথম ক্বেবলা পবিত্র মসজিদুল আকসাকে ঘিরে গড়ে ওঠা জেরুসালেম নগরী ফিলিস্তিনীদেরই ভূমি। এই ভূমি ইসরাইল অবৈধভাবে জবর দখল করে রেখেছে। বিশ্ব সম্প্রদায় ইসরাইলের এই জবরদখলকে কখনো মেনে নেয়নি। মধ্যপ্রাচ্যে টেকসই শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে জেরুসালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণা করেই স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে।
বক্তারা আরো বলেন, মার্কিন প্রেসেডিন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী বলে যে ঘোষণা দিয়েছেন, এটা সম্পূর্ণ অবৈধ এবং অন্যায়। যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্ত অন্যায়ের পক্ষে এবং আগ্রাসী অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলকে এক তরফা সমর্থন দেয়ার শামিল। যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্তে গোটা মধ্যপ্রাচ্যে নতুন করে উত্তেজনা ও সংঘাত ছড়িয়ে পড়বে। তারা বলেন, ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তে শুধু মুসলিমরাই হতাশ হয়নি, বরং বিশ্বের শান্তিকামী সকলেই আঘাত পেয়েছেন। বিশ্ব শান্তির জন্য ট্রাম্পের এই ঘোষণা মারাত্মক হুমকি তৈরি করেছে। বক্তারা ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মুসলমানদের বিরুদ্ধে স্বঘোষিত শত্রু আখ্যা দিয়ে বলেন, তার ষড়যন্ত্রে ইতিমধ্যেই সৌদআরবসহ গোটা মধ্যপ্রাচ্যে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি বিরাজ করছে। তারা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ও নিরাপত্তার স্বার্থে মার্কিন নাগরিকদেরও উচিত, তাদের এই ক্ষেপাটে মস্তিষ্ক বিকৃত প্রেসিডেন্টকে গদি থেকে টেনে নামিয়ে আনার জন্য রাস্তায় বের হওয়া।
প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেন, জেরুসালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গড়ার পক্ষে বিশ্ব জনমত গড়ে তুলতে আরব দেশগুলোর পাশাপাশি বাংলাদেশকেও মুখ্য ভূমিকা পালন করতে হবে। তিনি পবিত্র জেরুসালেম নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অন্যায় সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে আগামী ১৩ ডিসেম্বর বুধবার সকাল ১১টায় বায়তুল মোকাররম উত্তর গেট থেকে রওনা হয়ে ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচি ঘোষণা করেন। তিনি উক্ত কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে বাস্তবায়নের জন্য দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের শান্তিকামী জনতার প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।
প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে বিশাল একটি বিক্ষোভ মিছিল আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীর নেতৃত্বে বায়তুল মোকাররম উত্তর গেট থেকে বের হয়ে পল্টন মোড় হয়ে পুণরায় বায়তুল মোকাররম উত্তর গেট বরাবর এসে শেষ হয়। মিছিলে বিভিন্ন ব্যানার, প্লাকার্ড ও ফেস্টুন বহন করতে দেখা যায়। মিছিলটি ডোনাল্ড ট্রাম্প নিপাত যাক, ইসরাইল নিপাত যাক, মুসলমানরা এক হও ইত্যাদি শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে। মিছিলের আগে পরে ব্যাপক পুলিশি উপস্থিতি দেখা যায়।
খেলাফত আন্দোলন : বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের প্রধান, আমীরে শরীয়ত মাওলানা হাফেজ শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুর জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ইয়াহুদী খৃষ্টানরা ঐক্যবদ্ধভাবে মুসলমানদের প্রথম কিবলা বাইতুল মুকাদ্দাসকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করছে যা বিশ্ব মুসলিম রক্তের বিনিময়ে হলেও প্রতিহত করবে। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মুসলমানদের অসংখ্য স্মৃতি বিজড়িত জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করে বিশ্বের কোটি কোটি মুসলমানদের হৃদয়ে আঘাত হেনে বিশ্বযুদ্ধের উস্কানী দিচ্ছে। মুসলমানরা ঐতিহ্য রক্ষায় যুদ্ধে নেমে গেলে পৃথিবীর কোন পরাশক্তি টিকে থাকতে পারবে না। তিনি অবিলম্বে জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী করার বিতর্কিত ঘোষণা প্রত্যাহার করার দাবি জানান।
গতকাল শুক্রবার বাদ জুমা রাজধানী ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব সমাবেশে সভাপতির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দলের মহাসচিব মাওলানা মুহাম্মাদ হাবীবুল্লাহ মিয়াজী, নায়েবে আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, হাজী জালালুদ্দীন বকুল, হাফেজ আবু তাহের, মুফতী ফখরুল ইসলাম, মুফতী সুলতান মইিউদ্দীন, মাও. ছানাউল্লাহ, মাও. আশরাফুজ্জামান পাহাড়পুরী, মাও. আব্দুল্লাহ, মাও. আকরাম হুসাইন প্রমুখ।
মাওলানা মুহাম্মাদ হাবীবুল্লাহ মিয়াজী বলেন, ট্রাম্পের ঘোষণাকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে জেরুসালেকে ফিলিস্তিনের রাজধানী প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। জীবন দিয়ে হলেও ট্রাম্পের এই ঘোষণা বাস্তবায়ন করতে দেয়া যাবে না।
খেলাফত মজলিস : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কর্তৃক জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার প্রতিবাদে গতকাল বাদ জুমআ বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে মিছিল পরবর্তী সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, মসজিদুল আকসা মুসলমানদের প্রথম কেবলা এবং সমগ্র বিশ্ব মুসলিমের ঈমানের বিষয়। জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করায় বিশ্বের মুসলমানরা ফুসে উঠেছে। জেরুসালেমকে রাজধানী ঘোষণা করে ট্রাম্প বিশ্বের মুসলমানকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার পরিস্থিতি সৃষ্টি করে দিয়েছে। সুতরাং জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা বাতিল না করলে বিশ্বব্যাপী প্রতিবাদ অব্যাহত থাকবে। নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রী জেরুসালেম ইস্যুতে মুসলমানদের পক্ষে সাহসী ঘোষণা দেয়ায় ধন্যবাদ জানান এবং বিশ্বের মুসলিম দেশগুলোকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে ইসরাইল ও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে জোরালো ভূমিকা রাখার জন্য আহ্বান জানান। ঢাকা মহানগরীর সভাপতি মাওলানা এনামুল হক মূসার সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় অফিস ও বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা মুহসিনুল হাসান, সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা হারুনুর রশিদ ভূইয়া, নির্বাহী সদস্য মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সিরাজী, মাওলানা ফয়সল আহমদ, ঢাকা মহানগরীর সহ-সভাপতি মুফতি নূর মোহাম্মদ আজিজী প্রমুখ।
খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, মুসলমানদের পবিত্র নগরী জেরুসালেম হবে স্বাধীন ফিলিস্তিনের রাজধানী। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক জেরুসালেমকে অবৈধ ইসরাইল রাষ্ট্রের রাজধানী ঘোষণা সম্পূর্ণ অবৈধ। ট্রাম্পের এ ঘোষণার বিরুদ্ধে বিশ্ববাসীকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আল-কুদস তথা জেরুসালেম মুক্ত করার জন্যে বিশ্ব মুসলিমকে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধে ঝাপিয়ে পড়তে হবে। ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার প্রতিবাদে খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরী আয়োজিত প্রতিবাদী মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০ টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগরী সভাপতি শেখ গোলাম আসগরের সভাপতিত্বে ও ঢাকা মহানগরী সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আজীজুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য পেশ করেন খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর মাওলানা সৈয়দ মজিবুর রহমান, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন খেলাফত মজলিসের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, এডভোকেট মোঃ মিজানুর রহমান, অধ্যাপক মোঃ আবদুল জলিল, ঢাকা মহানগরীর সহসভাপতি হাফেজ মাওলানা নূরুল হক প্রমুখ।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মাওলানা সৈয়দ মজিবর রহমান বলেন, ট্রাম্পের অবৈধ ঘোষণার মধ্য দিয়ে সারা বিশ্বে প্রতিবাদের ঢেউ সৃষ্টি হয়েছে। উহুদীদের হাত থেকে জেরুসালেমকে উদ্ধারে মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে নামতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ