বৃহস্পতিবার ২৬ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

চুয়াডাঙ্গার ২টি সড়কের বেহালদশা সংস্কারের দাবী

এফ.এ আলমগীর, চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গার সদর উপজেলার তিতুদহ ইউনিয়নের গোলাপনগর বাজার  থেকে সড়াবাড়ীয়া বাজার পর্যন্ত প্রায় ৯ কিলোমিটার রাস্তাটি বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় রাস্তাটির ৯৫ ভাগই ভেঙ্গে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে চলাচলে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। প্রতিদিন রাস্তা দিয়ে কয়েক শত আলমসাধু, ভ্যানসহ অন্যান্য যানবাহন চলাচল করায় রাস্তাটির বিভিন্ন জায়গায় ভেঙ্গে বড় বড় গর্ত হয়ে গেছে। প্রায় সময় মালবাহিগাড়ী,পাখিভ্যান,করিমন ও অটোরিক্সা গর্তে পড়ে  উল্টিয়ে গিয়ে দুর্ঘটনার দৃশ্য চোখে পড়ে। এছাড়াও  রাস্তার ওপর কাঁদায় আটকে যাওয়া বিভিন্ন ধরনের গাড়ি ঠেলার দৃশ্য দেখা মেলে। প্রতিদিন প্রায় ৫ হাজার লোকের চলাচলের একমাত্র রাস্তাটি এটি। ফলে প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে অসংখ্য মানুষ চলাচল করে। স্থানীয় কয়েকটি মাদ্রাসা, কিন্ডার গার্টেন ও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শত শত শিক্ষার্থী প্রতিদিন এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। রাস্তাটি ৯কিলোমিটার হলেও প্রায় ৫ কিলোমিটার রাস্তার পাশেই আছে বড় বড় পুকুর। যার ফলে রাস্তাটির অনেক জায়গা ধ্বসে পুকুরের মধ্যে পড়ে গেছে। ভাঙ্গা রাস্তা ও কাঁদাপানি  দিয়ে এ সড়ক দিয়ে শিক্ষার্থীর বাইসাইকেল ও পায়ে হেঁটে যাতায়াতে ভীষন অসুবিধায় পড়তে হয়। অনেক সময় গাড়ীর কাদাঁপানি ছিটিয়ে শিক্ষার্থীদের জামা-কাপড় নষ্ট হয়ে যায়। প্রত্যন্ত এবং কৃষি নির্ভর এলাকা হিসেবে ভাঙাচোরা রাস্তা দিয়ে মানুষ হাট-বাজার করা ও মালামাল আনা-নেয়া করতে প্রতিনিয়ত অসুবিধার সন্মুখিন হচ্ছে।
এদিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার পদ্মবিলা ইউনিয়নের চারমাইল বাজার থেকে বসুভান্ডারদহ গ্রাম পর্যন্ত হেরিংবন্ড দিয়ে
তৈরি সড়কটি যেন মরণফাদে পরিনত হয়েছে। দিনের পর দিন সড়কের অবস্থা বেহালদশার দিকে যাচ্ছে। সড়কটির কোনো সংস্কার না হওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সড়কের বিভিন্ন স্থানে রাস্তার ইট উঠে বৃষ্টির পানি জমে মরণফাঁদ তৈরি হয়েছে। এলাকার শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ জনসাধারনের চলাচলে অসুবিধার সৃষ্টি হলেও কোনো বিকল্প রাস্তা নেই। মরণফাঁদে পরিণত রাস্তাটি সংস্কারের কোনো উদ্যোগও দেখা যাচ্ছে না। চুয়াডাঙ্গার চারমাইল বাজার থেকে বসুভান্ডারদহ রাস্তাটি জরুরী ভিত্তিতে সংস্কারের দাবি জানিয়েছে ভুক্তভোগি এলাকাবাসী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ