সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

চট্টগ্রমের ত্রাস মহিম নিহত

চট্টগ্রাম অফিস : চট্টগ্রামের শীর্ষ সন্ত্রাসী বায়েজিদ এলাকার ত্রাস দুর্ধর্ষ মহিম @ মহিন চট্টগ্রাম মহানগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন রাজগঞ্জ এলাকায় র‌্যাবের সাথে গুলী বিনিময়ে নিহত হয়েছে। র‌্যাবের কর্মকর্তারা বলেছে এ সময় ১টি একে-২২ এসএমজি, ১টি বিদেশী পিস্তল, ১টি বিদেশী রিভলবার এবং বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার হয়েছে।

 র‌্যাব ৭ এর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চট্টগ্রাম মহানগরীর বায়েজিদ এলাকায় ত্রাস শীর্ষ সন্ত্রাসী দুর্ধর্ষ মহিম @ মহিন এক আতঙ্কের নাম। খুন, হানাহানি, আধিপত্য বিস্তার, অপহরণসহ এমন কোন অপরাধ নেই সে করেনি। চাঁদাবাজির টাকা দিয়ে গত কয়েক বছরে সে নগরীর বায়েজিদ এলাকায় বিশাল সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তুলেছে। তার বিরুদ্ধে নগরীর বিভিন্ন থানায় খুন, অস্ত্র আইন, হানাহানি, অপহরণ ও জবর দখলসহ বিভিন্ন অপরাধে ১৮টির অধিক মামলা রয়েছে। র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এই দুর্ধর্ষ শীর্ষ সন্ত্রাসী মহিম @ মহিন’কে গ্রেফতারের লক্ষ্যে ব্যাপক গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত রাখে। এরই প্রেক্ষিতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, মহিম @ মহিন এর নেতৃত্বে একটি সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীদল চট্টগ্রাম মহানগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন রাজগঞ্জ এলাকায় নাশকতার উদ্দেশে অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে অবস্থান করছে।  এ তথ্যের ভিত্তিতে   ৩০ নবেম্বর  ভোর ৪ টায় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে র‌্যাবের একটি  দল সেখানে পৌঁছালে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা র‌্যাবকে লক্ষ করে এলোপাথারিভাবে গুলী বর্ষণ শুরু করে। আত্মরক্ষা ও সরকারি জানমাল রক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলী বর্ষণ করে। প্রায় ১০ মিনিট গোলাগুলীর এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটে পালিয়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলে একজনকে গুলীবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। তাৎক্ষণিকভাবে আহত ব্যক্তিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে ১টি একে-২২ এসএমজি, ১টি ৭.৬৫ মিঃ মিঃ বিদেশী পিস্তল, ১টি .৩৮ মিঃ মিঃ বিদেশী রিভলবার, ২টি ম্যাগাজিন , ২৭ রাউন্ড গুলী/কার্তুজ এবং ২৬ রাউন্ড খালি খোসা  উদ্ধার করা হয়। এ সময় স্থানীয়দের মাধ্যমে জানা যায় যে, নিহত ব্যক্তি চট্টগ্রামের শীর্ষ সন্ত্রাসী বায়েজিদ এলাকার ত্রাস দুর্ধর্ষ মহিম @ মহিন, পিতা- মৃত আবুল কাশেম, হাজীপাড়া মোহাম্মদ মিয়া সওদাগর বাড়ি, থানা-বায়েজিদ, সিএমপি চট্টগ্রাম। তার বিরুদ্ধে খুন, ডাকাতি, অপহরণ, চাঁদাবাজি এবং অস্ত্র আইনের চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন থানায় ১৮টির অধিক মামলা রয়েছে। গুলী বিনিময়ের ঘটনায় ৩ জন র‌্যাব সদস্য আহত হলে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়।   নিহত ব্যক্তি, উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও অন্যান্য আলামত পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ