শনিবার ৩১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

কালিয়াকৈরে গ্যাস সমস্যায়  তিন শতাধিক কারখানায়  উৎপাদন বন্ধ

 

কালিয়াকৈর সংবাদদাতা : ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ৪ লেনের উন্নীতকরণ কাজের জন্য মহাসড়কের পাশে তিতাস গ্যাসের সঞ্চালন লাইন মেরাতের কাজ চলমান রয়েছে। এজন্য গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার তিতাস গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন চন্দ্রা জোনাল অফিসের আওতাভুক্ত এলাকায় গ্যাস না থাকায় বৃহস্পতিবার প্রায় শতাধিক কারখানায় উৎপাদন বন্ধ থাকে।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিসন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের সাসেস প্রকল্পের আওতায় গ্যাস পাইপলাইনের ভাল্ব স্থানান্তর কাজের জন্য জয়দেবপুর সিজিএস হতে এলেঙ্গা পর্যন্ত রাস্তার উভয় পাশে গ্যাস লাইনে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় গ্যাস নির্ভর সকল কারখানা বন্ধ রয়েছে।

জানা যায়, তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ ওই দিন চন্দ্রা কোনাবাড়ী সফিপুর এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে জরুরি গ্যাস শাট ডাউন দেয়। এ সময় বেশির ভাগ কারখানা কর্তৃপক্ষ ছুটি ঘোষণা করেন। সফিপুর, মৌচাক, চন্দ্রা এলাকায় প্রায় তিন শতাধিক কারখানা বন্ধ থাকে। রহিম টেক্সটাইল, মালেক স্পিনিং, নিউটিশিয়া, এপেক্স ল্যানজারী লিমিটেডসহ শত শত কারখানা বন্ধ থাকায় উৎপাদন হয়নি। এক দিনে প্রচুর লস হয়েছে বলে কারখানা কতৃপক্ষ জানান।

এব্যাপারে এপেক্স ল্যানজারী কারখানার জিএম মেজবাহ মোহাম্মদ হাসনাতদৌল্লা জানান, গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় কারখানার উৎপাদন ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কারখানায় প্রায় বিশ হাজার শ্রমিক কর্মরত।

রহিম টেক্সটাইল কারখানার ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) হুমায়ুন কবীর বলেন, গ্যাসের সরবরাহ বন্ধ থাকায় এক দিনে প্রচুর লস হয়েছে। এলাকার শত শত কারখানা উৎপাদন বন্দ ও কারখানা ছুটি দেওয়া ছাড়া কোন উপায় ছিল না।

তিতাস গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন চন্দ্রা জোনাল অফিসের ব্যবস্থাপক সুরুয আলম বলেন, গ্যাস লাইনের সংস্কার কাজের জন্য এক দিন গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকে। ফলে ওই এলাকায় প্রায় আড়াইশত কারখানা বন্ধ ছিল। তবে আগামী কাল থেকে পুনরায় যথারীতি গ্যাস সরবরাহ করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ