রবিবার ২৯ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

চট্টগ্রাম পর্ব শেষে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

স্পোর্টস রিপোর্টার : ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে বিপিএলের প্রথম তিন পর্ব । সিলেট, ঢাকা এবং চট্টগ্রাম পর্ব শেষ করার পর আবারও ঢাকা পর্ব শুরু হওয়ার অপেক্ষা। চট্টগ্রাম পর্ব শেষ আর ঢাকার ফিরতি পর্ব শুরুর আগে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে বিপিএলের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। আর ১৩ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে আছে খুলনা টাইটান্স। দুটি দলই ইতিমধ্যে নিশ্চিত করেছে সুপার ফোর। আগামী ২ ডিসেম্বর শুরু হবে ঢাকায় শেষ পর্ব। তবে একদিন পিছিয়ে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে ৩ ডিসেম্বও শুরু হতে পারে ঢাকার পর্ব। বিপিএলে গ্রুপ পর্বের লড়াইও প্রায় শেষ হয়ে আসার পথে। ইতিমধ্যেই বিপিএলের শেষ চার নিশ্চিত করে ফেলেছে তামিম ইকবালের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের খুলনা টাইটান্স। শেষ চারে যাবে আরও দুই দল। বিপিএলের পয়েন্ট টেবিলের দিকে তাকালে সেরা চারটি দল স্পষ্ট হয়ে যাবে। খুলনা আর কুমিল্লার পর এই তালিকায় অন্যদের চেয়ে এগিয়ে ঢাকা ডায়নামাইটস এবং রংপুর রাইডার্স। বিপিএলের বাকি অংশে এই দুই দলই এগিয়ে থাকার সম্ভাবনা বেশি। কারণ, ৯ ম্যাচ খেলা রংপুর রাইডার্স ১০ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে থাকলেও তাদের হাতে রয়েছে ৩টি ম্যাচ। তিন ম্যাচ হাতে থাকলেও রংপুরের সমর্থকদের মনে মনে স্বস্তি পাওয়ার কোনো কারণ নেই। কারণ, মাশরাফিদের বাকি তিন ম্যাচের সূচির দিকে তাকালেই তাদের চোখ কপালে উঠে যাবে। তিন ম্যাচেই যে প্রতিপক্ষ দারুণ শক্তিশালী! কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, খুলনা টাইটান্স এবং ঢাকা ডায়নামাইটস। ঢাকায় ফিরতি পবের প্রথম ম্যাচে রংপুর রাইডার্স মুখোমুখি হবে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। তামিমের বিপক্ষে এই লড়াইয়ে যদি মাশরাফি হেরে যান, তাহলে শেষ চারে যাওয়া তাদের জন্য অনেক কঠিন হয়ে যাবে। যদিও মাশরাফি-তামিমের আগের লড়াইয়ে হেরে গিয়েছিলেন মাশরাফি। শনিবার এই ম্যাচ জিততে পারলে প্রতিশোধ নেয়ার পাশাপাশি শেষ চারের পথে অনেকটাই এগিয়ে যাবে রংপুর রাইডার্স।মাশরাফিদের পরের ম্যাচ খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে। রোববারই তারা মুখোমুখি হবে রিয়াদের দলের। এরপর ৬ই ডিসেম্বর রংপুর গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে সাকিব আল হাসানের দল ঢাকা ডায়নামাইটসের। কুমিল্লাা এবং খুলনার বিপক্ষে ফল ভিন্ন হলে মাশরাফিদের সামনে  শেষ চারে ওঠার জন্য ঢাকার বিপক্ষে ম্যাচটিই হয়ে দাঁড়াবে ‘ফাইনাল’। ওই ম্যাচ জিতলেই হয়তো বা শেষ চারের টিকিট কাটা হয়ে যাবে তাদের জন্য। ১০ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে রয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস। সাকিব আল হাসানের দল শুরু থেকে যেভাবে দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে চলছিল, তাতে মনে হচ্ছিল এবারও তারা চ্যাম্পিয়ন। সবার আগে শেষ চার নিশ্চিত হবে তাদেরই; কিন্তু শেষ চার ম্যাচের মধ্যে তিন ম্যাচ হেরে ঢাকা এখন পুরোপুরি ব্যাকফুটে। তিন নম্বরে নেমে এসেছে তারা। শুধু তাই নয়, শেষ চার নিশ্চিত হবে কি না তা নিয়েও রয়েছে সংশয়। ঢাকার ম্যাচ বাকি ২টি। এর মধ্যে একটি রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে। অন্যটি রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে। রাজশাহী এবারের আসরে খুব একটা সুবিধা না করতে পারলেও ড্যারেন স্যামির নেতৃত্বাধীন দলটি শেষ মুহূর্তে এসে দুর্দমনীয় হয়ে ওঠে। গত আসরেই এর প্রমাণ দেখা গেছে। সুতরাং, ঢাকার জন্য অশনি সঙ্কেত অপেক্ষা করছে। শেষ ম্যাচ তো রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষেই। ঢাকা রংপুর ছাড়াও শেষ চারের রেসে টিকে আছে সিলেট সিক্সার্স এবং রাজশাহী কিংস। ৮ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বরে রয়েছে রাজশাহী এবং ৭ পয়েন্ট নিয়ে ৬ নম্বরে সিলেট সিক্সার্স। রাজশাহীর সামনে ২ ম্যাচ বাকি। এই ২ ম্যাচই যদি তারা জিতে যায়, তাহলে হবে ১২ পয়েন্ট। সে ক্ষেত্রে শেষ চারে যাওয়ার সম্ভাবনাও তাদের উজ্জ্বল। অন্যদিকে সিলেটের বাকি ২ ম্যাচ। এই ২ ম্যাচ জিতলে তাদের পয়েন্ট হবে ১১। তাতেও তাদের সামনে সম্ভাবনা টিকে থাকবে হয়তো বা। যদিও হিসাবটা খুবই জটিল এবং সুক্ষ। রাজশাহী দুই ম্যাচ খেলবে ঢাকা ডায়নামাইটস এবং চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে। অন্যদিকে সিলেট নিজেদের  শেষ দুই ম্যাচ খেলবে চিটাগং ভাইকিংস এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে। বিপিএলের শুরুতে টানা তিন ম্যাচ জিতে চমক সৃষ্টিকারী সিলেট কী শেষ দুই ম্যাচ জিতে শেষ চার নিশ্চিত করতে পারবে? এটাই এখন সবচেয়ে দেখার বিষয়। বাকি দল চিটাগং ভাইকিংস। ২ ম্যাচ বাকি থাকতেই ইতোমধ্যে তাদের বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেছে। কারণ, দলটির হাতে আছে আর দুই ম্যাচ। এই দুই ম্যাচ জিতলেও তাদের পয়েন্ট হবে ৯। শেষ চারে ওঠার আর কোনো সম্ভাবনা তাদের সামনে নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ