বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার শেষ দিনেও প্রশ্ন ফাঁস

স্টাফ রিপোর্টার : পরীক্ষায় প্রশ্নফাসের ঘটনা থামছেই না। পাবলিক পরীক্ষা, নিয়োগ পরীক্ষা, ভর্তি পরীক্ষা কোনটাই বাদ যাচ্ছে না। ৫ম শ্রেণীর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায়ও প্রায় প্রতিদিনই পরীক্ষা ফাঁসের খবর বেড়িয়েছে। গতকাল রোববার টাঙ্গাইলের গোপালপুরের দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। সেখানে পরীক্ষা শুরুর কয়েক মিনিট পরই কেন্দ্রের আশেপাশে দলে দলে ভাগ হয়ে কিছু একটা করার জটলা চোখে পড়ে। কৌতুহল বশত একটু এগিয়ে গিয়েই দেখা গেল- প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্নপত্র দেখে সাদা কাগজে উত্তর লিখছেন অভিভাবকরা। এ যেন অভিভাবকদের পরীক্ষা চলছে।
গতকাল প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) গণিত পরীক্ষা চলাকালীন টাঙ্গাইলের গোপালপুরের নারুচী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এমন চিত্র দেখা গেছে।
প্রশ্নপত্র কিভাবে বাইরে আসলো জানতে চাইলে অভিভাবকরা বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রের ভিতর থেকে প্রশ্নটি মোবাইলের মাধ্যমে ছবি তুলে স্থানীয় কোচিং সেন্টারের পরিচালকরা সরবরাহ করেছে। আর সেই প্রশ্ন দেখে সাদা কাগজে উত্তর লেখার পর দায়িত্বরত শিক্ষকদের ম্যানেজ করে শিক্ষার্থীদের কাছ পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। অভিভাবকদের দেয়া নকল দেখেই পরীক্ষার মূল উত্তরপত্রে লিখছে শিক্ষার্থীরা। ওই কেন্দ্রে চারটি কোচিং সেন্টারের ৪৮ জন শিক্ষার্থী ছাড়াও ৩৯৭ জন পরীক্ষা দিচ্ছে।
উত্তরপত্র লেখার সময় ব্রাইটার কোচিং সেন্টারের এক শিক্ষক বলেন, ‘আমাদের শিক্ষার্থীরা এখানে পরীক্ষা দিচ্ছে। সুতরাং দায়িত্বের মধ্যেই এই কাজ করতে হচ্ছে। দায়িত্বরতদের ম্যানেজ করে মোবাইলে প্রশ্নের ছবি তুলে বাইরে আনা হয়েছে। সবাই করছে তাই আমাদের ছেলে-মেয়েদের জন্য একটু সহযোগিতা করছি।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে নারুচী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সচিব সাইদুজ্জামান জানান, কেন্দ্রে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা হচ্ছে। কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, বিচ্ছিন্ন এলাকা হওয়ায় এই কেন্দ্রে দায়িত্বপালন করা কষ্টের। তবে নকলের কোন সুযোগ নেই। প্রশ্নপত্র বাইরে যাওয়ার কোনো খবর জানা নেই।
ফাঁস হওয়া প্রশ্নের সঙ্গে ৭০ ভাগই মিল! প্রাথমিক সমাপনীর গণিতের পরীক্ষা হয় গতকাল সকালে। তবে বৃহস্পতিবার থেকে প্রশ্ন ফাঁসের গুজব শোনা যায়। শুধু গুজব নয়, ওইদিন রাত থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইউটিউবে প্রশ্ন পাওয়া গেছে। ফেসবুকে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের ছবিসহ অনেকে স্ট্যাটাসও দিয়েছেন। ফাঁস হওয়া প্রশ্ন পাওয়া গেছে-যার সঙ্গে পরীক্ষা হওয়ার প্রশ্নের ৭০ শতাংশ মিল রয়েছে বলে খবর বেড়িয়েছে। 
প্রশ্ন শুধু ফেসবুকে নয়, ইউটিউবেও পাওয়া গেছে। সেখানে উত্তরসহ ভিডিও করে ছাড়া হয়েছে। গতকাল সকালে যে প্রশ্নে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়, সে প্রশ্নের সঙ্গে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের প্রায় ৭০ ভাগ মিল রয়েছে।
দুটি প্রশ্নপত্র মিলিয়ে দেখা গেছে, ১ নম্বরে ২৪টি প্রশ্নের মধ্যে ১৪টি এবং ২ নং প্রশ্নের ১০টির ৯টির মিল পাওয়া গেছে। বড় প্রশ্নের ক্ষেত্রে ৩ নং এর দ্বিতীয় প্রশ্ন, ৪নং এর দু’টি প্রশ্নই, ৫নং এর দ্বিতীয় প্রশ্ন, ৭ নং এর প্রথম প্রশ্ন, ৮নং এর সব প্রশ্ন , ৯নং এর প্রথম প্রশ্নের সঙ্গে পুরোটাই মিল রয়েছে।     
এই মিল শুধু বাংলা মাধ্যমেই নয়, ইংরেজি মাধ্যমের প্রশ্নেও একই মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ