সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

অবুঝ শিশুর পুরুষাঙ্গ কেটে দিল চাচা-চাচী

কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) সংবাদদাতা: ছোট শিশুদের ঝগড়াকে কেন্দ্র করে রাতের আঁধারে পৌনে দুই বছরের শিশুর পুরুষাঙ্গ ধারালো ব্লেড দিয়ে কেটে দিয়েছেন শিশুটির চাচা-চাচী। নির্মম এ ঘটনার শিকার হয়েছে নাজিজুল আমিন (২১ মাস) নামের এক শিশু।
ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার পার্শ্ববর্তী খাসালা গজারিয়া গ্রামে।
খাসালা গজারিয়া বাজিতপুর উপজেলার পশ্চিম সীমান্তবর্তী গ্রাম। নাজিজুল খাসালা গজারিয়া গ্রামের মো. হামিদ মিয়ার পুত্র। এ ঘটনায় শিশুটির চাচা সবুজ মিয়া (৩৫) এবং চাচী রোকসানা বেগম (২৫) কে পুলিশ গ্রেপ্তার করে কিশোরগঞ্জ জেল হাজতে প্রেরণ করে। বৃহস্পতিবার আসামীদের রিমান্ডের আবেদন করেছে পুলিশ। নির্মম এ ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভ ও উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।
এলাকাবাসী ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ঘটনার তিনদিন পূর্বে বাদী মো. হামিদ মিয়ার পুত্র নুরুল আমিন (৯) ও সবুজ মিয়ার পুত্র শাওন (১২) এর মধ্যে ঝগড়া বিবাদকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের বড়দের মাঝে গালি গালাজ ও  ক্ষোভ বিরাজ করছিল। গত ২০ নভেম্বর সোমবার রাতে হামিদ মিয়ার স্ত্রী আছমা বেগম প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘর থেকে বের হলে পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকা সবুজ মিয়া ও রোকসানা আছমার ঘরে প্রবেশ করে ধারালো ব্লেড দিয়ে শিশু নাজিজুলের পুরুষাঙ্গ কেটে পালানোর সময় আছমা বেগম তাদের দেখে ফেলে এবং শিশুটির কান্নার শব্দ শুনতে পায়। ঘরে প্রবেশ করে তার শিশু সন্তানের পুরুষাঙ্গ কাটা দেখে ডাকচিৎকার করলে তার স্বামী হামিদ মিয়া ও প্রতিবেশীরা ঘটনাস্থলে এসে এ নির্মম ঘটনাটি দেখতে পায়। তৎক্ষণাৎ শিশুটিকে ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় শিশুটির পিতা হামিদ মিয়া বাদী হয়ে সবুজ মিয়া ও রোকসানাকে আসামী করে বাজিতপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ উভয়কে গ্রেপ্তার ও বসত ঘর থেকে রক্তমাখা কাপড় চোপড় উদ্ধার করে। নিষ্ঠুর নির্মমতার শিকার নাজিজুলের মামা রুহুল আমিন জানান, দুই পরিবারের মাঝে পূর্ব থেকে কলহ বিরাজ করছিল। আমি পাষ-দের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবী করছি। 
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো: শাখাওয়াত হোসেন জানান, এ রকম অপরাধ বিরল, নিষ্পাপ শিশু বাচ্চার পুরুষাঙ্গ কাটিয়া হত্যা করাই উদ্দেশ্য ছিল তাদের উদ্দেশ্য।  আসামীদের গ্রেপ্তার করে জেল হাজাতে প্রেরণ ও আলামত জব্দ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ