সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

বন্যা বিধ্বস্ত শাহজাদপুর-পোরজনা বাজার সড়কের সংস্কার নেই

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: শাহজাদপুর উপজেলার পোরজনা বাজার হতে আশ্রম পর্যন্ত মাত্র ৮শ গজ সড়ক সংস্কারের অভাবে ৪০ হাজার মানুষের প্রতিদিন যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এর মধ্যে ২ হাজার ৩০৪ জন কমলমতি স্কুলগামী শিশু জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্কুলে যাতায়াত করছে। এদের বেশির ভাগের বয়স ৩ থেকে ১৪ বছর। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানাগেছে, সড়কটি নির্মাণের সময় ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে সামান্য বৃষ্টি আর বন্যার পানির চাপে এ সড়কটির গাইড ওয়াল ধসে গেছে। পিচ, পাথর ও খোয়া উঠে গেছে। এ ছাড়া সড়কটির বেশির ভাগ অংশ ভেঙ্গে গিয়ে এমন সরু হয়ে গেছে যে একটি ভ্যান এ সড়কে ঢুকলে ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াত বন্ধ হয়ে যায়। যনজটের সৃষ্টি হয়ে তাদের কাঠফাটা দুপুরে দীর্ঘ সময় সেখানে আটকা পড়ে থাকতে হয়। এ সময় তাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। পোরজনা এমএন উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ওয়ারেছ আলী জানান, পোরজনা আশ্রম এলাকায় ১টি আশ্রম ছাড়াও ১টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১টি হাইস্কুল, ১টি পোরজনা ভূমি অফিস, ১টি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র রয়েছে। এ সব প্রতিষ্ঠানে পোরজনা, বেলতৈল ও কৈজুরি ইউনিয়নের প্রায় ১৫টি গ্রামের ৪০ হাজার মানুষ প্রতিদিন এ সড়কটি দিয়ে নানান জরুরি প্রয়োজনীয় কাজে যাতায়াত করে থাকে। এ ছাড়া এ সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন পোরজনা বাজার ও ইউনিয়ন পরিষদে হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে থাকে। এ ছাড়াও পোরজনা আশ্রমে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত সহ প্রতিনিয়ত কলকাতা, নেপাল, ভূটান ও বার্মার অসংখ্য ভক্তবৃন্দ যাতায়াত করে থাকেন। অথচ দীর্ঘ দিনেও জন গুরুত্ব পূর্ণ এ সড়কটি সংস্কারের কোন উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। ফলে এ এলাকার ৪০ হাজার মানুষ প্রতিদিন যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ড পোরজনা হাই স্কুলের পূর্ব পাশ দিয়ে যদি হুড়াসাগর নদীটির পশ্চিম তীর সংরক্ষনের ব্যবস্থা করে তবে জমিদার মুকুন্দ্রনাথ ভাদুরী প্রতিষ্ঠিত ১৩৬ বছরের পুরাতন ও ঐতিহ্যবাহী পোরজনা এমএন উচ্চ বিদ্যালয় সহ বহু গুরুত্ব অফিস ও স্থাপনা নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পাবে। সেই সাথে এ সড়কটি আর বারবার ভাঙ্গনের কবলে পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হবেনা। এতে এ এলাকার মানুষের জনদুর্ভোগও লাঘব হবে। গত বছর পোরজনা আশ্রম পরিদর্শনে গিয়ে জাতীয় সংসদের হুইপ নওগাঁ- ২ (পত্নীতলা-ধামুইরহাট) আসনের এমপি এ্যাডভোকেট শহিদুজ্জামান সরকার পোরজনা শ্রী শ্রী ভজন অশ্রমের পাশের হুড়াসগর নদীর তীর সংরক্ষণের ব্যবস্থা করে এ আশ্রমসহ গুরুত্বপূর্ণ সকল স্থাপনা ও সড়কটি রক্ষার ব্যবস্থা করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। তার এ ঘোষণার পর সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড এ কাজের টেন্ডারও সম্পন্ন করেছেন। গত এক বছরেও তার সে ঘোষণা বাস্তবায়ন হয়নি। কারণ হিসাবে জানাগেছে ঠিকাদার বন্যার অজু হাতে এখনও কাজ শুরু করেনি। ফলে এ আশ্রমের ভক্তবৃন্দসহ এলাকাবাসি হতাশ হয়ে পড়েছেন। এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, ইতিমধ্যেই পানি উন্নয়ন বোর্ডকে রিমায়েন্ডার দেয়া হয়েছে। তারা বন্যার পানি শুকিয়ে গেলে কাজ শুরু করবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ