সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

প্রকল্পের অভাবে থেমে আছে মাশরুম চাষ

খুলনা অফিস : ‘মাশরুম উন্নয়ন জোরদারকরণ প্রকল্প’টি শেষ হয়েছে চার বছর আগে। এরপর থেকে তালাবদ্ধ রয়েছে নগরীর দৌলতপুরের হর্টিকালচার সেন্টারের দোতলায় অবস্থিত ‘টিস্যু কালচার এন্ড মাশরুম ল্যাবরেটরি’। ছাদের অবস্থা খারাপ হওয়ায় ল্যাবরেটরির মধ্যে পলেস্তরা খসে পড়ছে। অকেজো রয়েছে দুটি এয়ারকন্ডিশন যন্ত্র। কার্যক্রম না থাকায় প্রকল্পে ব্যবহৃত লাখ লাখ টাকা মূল্যের যন্ত্রপাতির অধিকাংশের দূরাবস্থা। গত প্রকল্পে খুলনা, বাগেরহাট, ফকিরহাট, শ্যামনগর ও যশোর এলাকার প্রায় দেড় হাজার চাষি সফলভাবে মাশরুম চাষ বিষয়ক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছে।
সরেজমিন দেখা যায়, ল্যাবরেটরিতে মাশরুমের প্যাকেট জীবাণুমুক্তকরণ কাজে ব্যবহৃত দুটি অটোক্লপ মেশিন, দুটি লেমিনার এয়ারফ্লো মেশিন, একটি মিক্সার এবং এসিগুলো অকেজো অবস্থায় পড়ে আছে। প্রকল্প শেষ হওয়ার পর থেকে ল্যাবরেটরি তালাবদ্ধ রয়েছে। ফলে বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনে দূরাবস্থা ও কক্ষের অবস্থা নাজুক। এর মধ্যে লাখ টাকা মূল্যের একটি লেমিনার মেশিন ও দুটি এসি ইতোমধ্যে নষ্ট হয়ে গেছে। মেঝেতে পড়ে রয়েছে মেশিনগুলো ও কয়েকটি ফ্যান। উপ-সহকারী উদ্যান কর্মকর্তা কার্তিক চন্দ্র সরকার বলেন, ল্যাবের একটি লেমিনার এয়ারফ্লো মেশিন অকেজো। প্রকল্প থেকে লেমিনার এয়ারফ্লো, অটোক্লেপ ও মিক্সার মেশিন দেয়া হয়েছিল। তবে এসি আগেই ছিল। তিনি আরো বলেন, হেড অফিস থেকে কোন প্রজেক্ট না থাকায় কাজ বন্ধ রয়েছে। এখন আমরা বিভিন্ন তথ্য ছাড়া মাশরুম চাষের ব্যাপারে কোন সেবা দিতে পারি না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ