শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

আগ্রাসন বিরোধী সংগ্রামে মাওলানা ভাসানী ও মেজর জলিল প্রেরণার উৎস -ডাঃ ইরান

লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেছেন, ভারতীয় আধিপত্যবাদ ও আগ্রাসন বিরোধী সংগ্রামে মওলানা ভাসানী ও মেজর জলিল দেশপ্রেমিক শক্তির  প্রেরণার উৎস। দেশ আজ চরম ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। মুক্তিযুদ্ধের ৪৬ বছরেও গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার থেকে জনগণ বঞ্চিত। ১৯৭১ সালে পিন্ডির হাত থেকে মুক্ত হলেও দিল্লীর গোলামীর জিঞ্জিরে আবদ্ধ হয়েছি। ভারত বাংলাদেশের বন্ধু দাবি করলেও তারা বারবার প্রমাণ করেছে বাংলাদেশকে পঙ্গু রাষ্ট্র হিসেবে দেখতে চায়। রোহিঙ্গা ইস্যুতে তারা নতুন করে বিরুদ্ধাচরণ করে প্রমাণ করেছে রোহিঙ্গা সমস্যা নিরসন করতে আন্তরিক নয়। তিনি বলেন, ভারতীয় ও মায়ানমারের আগ্রাসন মোকাবেলায় মওলানা ভাসানী ও মেজর জলিলের দেশপ্রেম ও সাহসী ভূমিকা নতুন প্রজন্মকে পথ দেখাবে। আধিপত্যবাদীরা বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব নস্যাৎ করতে যুবসমাজকে ধ্বংসের জন্য ফেনসিডিল ও ইয়াবা নামক মাদকের বাজারে পরিণত করেছে। সীমান্তে বাংলাদেশী নাগরিক হত্যা, টিপাইমুখি বাধ নির্মাণ, ট্রানজিটের নামে করিডোর দিয়েছে। তাই দেশের অখ-তা রক্ষায় জাতীয়তাবাদী ও দেশপ্রেমিক শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশ মাতৃকায় ঝাপিয়ে পড়তে হবে।
গতকাল রোববার বেলা ১১টায় লেবার পার্টির কার্যালয়ে ঢাকা দক্ষিণ আয়োজিত মওলানা ভাসানীর ৪১তম ও মেজর (অবঃ) জলিলের ২৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। মহানগর আহ্বায়ক মাওলানা আনোয়ার হোসাইনের সভাপত্বিতে সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন লেবার পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার ফরিদ উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ ফারুক রহমান, যুগ্ম মহাসচিব আবদুর রাজ্জাক রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমাউন কবির, আন্তর্জাতিক সম্পাদক খোন্দকার মিরাজুল ইসলাম, কেন্দ্র্রীয় নেতা লিটন খান রাজু, মোস্তাফিজুর রহমান রুম্মান, ছাত্রমিশন সাধারণ সম্পাদক সালমান খান বাদশা, যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ মোঃ মিলন, দক্ষিণ ছাত্রমিশন সদস্য সচিব মোহাম্মদ মুন্না শেখ প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ