মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

প্রতারণা কিনা তদন্তের নির্দেশ দিলেন আদালত

সিলেট ব্যুরো : সিলেট নগরীর ওলিকুল শিরোমনি হজরত শাহজালাল (রহ.) এর দরগাহ প্রাঙ্গণে পশ্চিম দিকে ডিপ টিউবওয়েলের পানিকে মক্কার জমজম কূপের পানি বলে বিক্রির মাধ্যমে প্রতারণার অভিযোগ বেশ পুরনো। এ বিষয়টি সম্প্রতি একটি টিভি চ্যানেলে নিউজ প্রচারিত হয়। ফলে মাজারে আসা ভক্তবৃন্দের মধ্যে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে রয়েছেন শতাধিক খাদিম পরিবার। বছরের পর বছর একটি মহল মাজারের পশ্চিম দিকের কৃত্রিম কুপের পানিকে ‘পবিত্র জমজমের পানি’ হিসেবে বিক্রি করে আসছিলো। এবার এই বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন সিলেটের একটি আদালত।
গত ১০ অক্টোবর পানি কিনে প্রতারণার শিকার হন দক্ষিণ সুরমার কদমতলী দরিয়া শাহ মাজার রোডের বাসিন্দা এইচ এম আব্দুর রহমান। তিনি বিষয়টি তদন্তের ব্যাপারে সিলেট মহানগর আদালতে মুখ্য হাকিমের নিকট একটি আবেদন করেন। এরই প্রেক্ষিতে আদালত বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুজ্জামান হিরো আগামী ৩০ নবেম্বরের মধ্যে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন জমা দিতে ইসলামিক ফাউন্ডশনের উপ-পরিচালককে নির্দেশ দিয়েছেন।
প্রতারণার অভিযোগ আমলে নিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালককে তদন্তের নির্দেশ প্রদান করেছেন। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানা গেছে আদালত সূত্রে।
এইচ এম আব্দুর রহমান দৈনিক সংগ্রামকে বলেন- চলতি বছরের গত ১০ অক্টোবর বিকালে তিনি হযরত শাহজালাল (রহ.) দরগাহ থেকে ‘জমজম কূপের পানি’ ক্রয় করেন। পরে গণমাধ্যমের খবরে জানতে পারি এটি জমজম কূপের পানি নয়। একটি মহল প্রতারণা চালাচ্ছে। পরে তিনি বিষয়টি আদালতের নজরে আনেন। তিনি আরো জানান, বিষয়টি তদন্ত শেষে কর্তৃপক্ষ যথাযথ ব্যবস্থা নিলে উপকৃত হবে হাজারো মাজারে আসা সাধারণ মানুষ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ